একনজরে সংগীত শিল্পী নাজনীন

কোরআন তেলাওয়াত, কবিতা, খেলাধূলায় সবসময় ১ম স্থান ধরে রাখতেন। পাশাপাশি গানে ছিল তার অসীম দক্ষতা। সংগীত শিল্পী মীর মুসলিমা নাজনীন গান নিয়ে অনেক স্বপ্ন দেখেন, ধ্যানে, গানে সব সময় দেশের মানুষের ভালবাসা আর সম্মান থেকে তিনি কখনো কখনো আবেগাপ্লুত হয়ে যান। দেশ আর মানুষের ভালবাসা নিয়ে তিনি প্রতিটি সংগীতপ্রেমী মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিতে চান। মীর মুসলিমা নাজনীন দেশের জন্য কিছু করতে চান এমন উৎসাহ আর মানুষের ভালবাসার কথা চিন্তা করে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে লালন করে তিনি জননেত্রী শেখ হাসিনার নামে গান গেয়ে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন এবং তাকে বাংলাদেশের একটি সুনামধন্য রাজনৈতিক সংগঠন বঙ্গবন্ধু পেশাজীবি পরিষদ সিলেট মহানগর কমিটির সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক হিসাবে নির্বাচিত করেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি জননেতা জনাব জহির উদ্দিন মবু।সংগঠনের পরিচিতি আর উন্নয়নের লক্ষ্যে নাজনীন হাসানের মতো সংগীত শিল্পী খুবই প্রয়োজন।নাজনীন হাসানের মতো একজন সংগীত শিল্পী দেশ,জাতি,সমাজ, আর একটি সংগঠনের জন্য অনেক বড় সম্পদ। আর নাজনীন হাসান মনে করেন বঙ্গবন্ধু পেশাজীবি পরিষদের মতো সংগঠনে যুক্ত হতে পেরে আমি নিজেকে গর্বিত মনে করছি, এবং ভবিষ্যতে সংগঠন, সমাজ,দেশ ও জাতি এবং শিল্পীদের জন্য কিছু করার সুযোগ পেলে করবো।

ইন্জিঃ মীর মোশাররফ হোসেন ও বেগম সুফিয়া হোসেন এর সর্বকনিষ্ঠ কন্যা মীর মুসলিমা নাজনীন। ৩ বোন আর ২ ভাইয়ের মধ্যে সবার আদরের ছোট মীর মুসলিমা নাজনীন। উনার বড় বোন মনিরা আহমেদ আমেরিকা প্রবাসী এবং ক্যালিফোর্নিয়ার একটি প্রতিষ্ঠিত ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান এর দায়িত্ব পালন করে আসছেন। অনেক ছোটবেলা থেকেই নাজনীন গানের প্রতি গভীরভাবে আকৃষ্ট ছিলেন। বড় বোন মনিরা আহমেদ সংগীত চর্চা করায় তাহার উৎসাহ আর অনুপ্রেরণা থেকে আজকের সংগীত শিল্পী নাজনীন হাসান। সংগীতাঙ্গনে তিনি নাজনীন হাসান নামেই পরিচিতি ও খ্যাতি অর্জন করেছেন। গানের ভূবনে সবটুকু অবদানই ছিল বড় বোন মনিরা আহমদের।

বিবাহ সূত্রে মীর মুসলিমা নাজনীন সিলেটে পদার্পন এবং বিবাহিত জীবনে তিনি এক সন্তানের জননী। সিলেটে এসে তিনি ক্ল্যাসিক্যাল সংগীত চর্চা ও রবীন্দ্র সংগীতের শিক্ষক হিসাবে বিপ্রদাস ভট্টাচার্যের সান্নিধ্যে লাভ করেন।জীবনের বহু প্রতিকূলতা আর ঘাত প্রতিঘাত পাড়ি দিতে হয়েছে এই সংগীতের প্রেমে পড়ে। তিনি জীবনের চেয়েও গানকে বেশী ভালবাসেন বলেই কোন বাধাই আটকাতে পারেনি সংগীত শিল্পী নাজনীন হাসানকে। মীর মুসলিমা নাজনীন অর্থনীতি বিভাগ থেকে মাষ্টার্স পাশ করেন। খুলনা মন্নুজান গার্লস স্কুল থেকে এস এস সি,চুয়াডাঙ্গা গভঃ কলেজ থেকে এইচ এস সি এবং পাবনা এডওয়ার্ড ইউনিভার্সিটি থেকে অনার্স ও রাজশাহী সরকারী কলেজ থেকে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন। এছাড়াও শিক্ষাজীবনে তিনি মেধার প্রমাণ রেখেছেন প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের ফলাফলে।

 

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 34
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ