বালাগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ

সিলেটের বালাগঞ্জ উপজেলার ছয়টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আগামী ১১ নভেম্বর ধার্য করা হয়েছে। আসন্ন ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান, সদস্য ও সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদের প্রতিদ্বন্দী প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। বুধবার (২৭ অক্টোবর) দুপুরে নিজ নিজ রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে আওয়ামী লীগ, খেলাফত মজলিস, ইসলামি আন্দোলন ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়।

দায়িত্ব প্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তাদের তথ্যানুসারে, পূর্ব পৈলনপুরে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শিহাব উদ্দিনকে (নৌকা), খেলাফত মজলিস মনোনীত প্রার্থী মো. মিছবাহ উদ্দিন মিছলুকে (দেয়াল ঘড়ি), স্বতন্ত্রপ্রার্থী মো. নজরুল ইসলাম (আনারস), আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আব্দুল মতিন (ঘোড়া), মো. মারুফ মিয়া (মটর সাইকেল)। বোয়ালজুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. আনহার মিয়া (নৌকা), স্বতন্ত্র মানিক মিয়া (ঘোড়া)। দেওয়ানবাজার ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. ছহুল আহমদ মুনিম (নৌকা), স্বতন্ত্রপ্রার্থী নাজমুল আলম। পশ্চিম গৌরীপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. আমিরুল ইসলাম মধু (নৌকা), স্বতন্ত্রপ্রার্থী আব্দুর রহমান (আনারস), আব্দুল মুকিত শরীফ (ঘোড়া), মুশাহিদ শিকদার (চশমা)। বালাগঞ্জ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. জুনেদ মিয়া (নৌকা), স্বতন্ত্রপ্রার্থী মো. আব্দুল মুনিম (আনারস)। পূর্ব গৌরীপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিমাংশু রঞ্জন দাস (নৌকা), ইসলামী আন্দোলন মনোনীত প্রার্থী আওলাদ মিয়া (হাতপাখা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মুজিবুর রহমান (আনারস), তামিমুল করিম হৃদয় (চশমা), আব্দুল মতিন (ঘোড়া) প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। নির্বাচনে ছয়টি ইউনিয়নে সাধারন সদস্য পদে ১৮৪ জন ও সংরক্ষিত মহিলা আসনে সদস্য পদে ৬১ জনের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়।

এসময় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দায়িত্ব প্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তা সুমন মিয়া, সমবায় কর্মকর্তা দায়িত্ব প্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তা উৎপল চক্রবর্তী ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সোহরাব আহমেদ জানান, দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় সবার প্রতীক আগে থেকেই নির্দিষ্ট। এবং অন্যান্য স্বতন্ত্র প্রার্থীদের প্রতীক নির্বাচন কমিশনের নিয়ম অনুযায়ী আজকে প্রতিদ্বন্দী সকল প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। আজকে থেকে প্রতিদিন দুপুর ২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রার্থী ও তার সমর্থকরা নির্বাচনী বিধিমালা মেনে গণ সংযোগ চালাতে পারবেন। নির্বাচনের ৩২ ঘণ্টা আগে অর্থাৎ আগামী ৯ নভেম্বর রাত ৮টার মধ্যে সকল প্রার্থীকে তাদের প্রচারণা শেষ করতে হবে।

এদিকে সরেজমিনে দেখা যায়, প্রতীক বরাদ্দের পর পরই উপজেলা পরিষদ মাঠে প্রার্থী সমর্থকরা প্রতীকি নাম ধরে, মিছিল ও বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে উৎসব আমেজে মুখরিত করছেন।

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএ/জে.

  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ