ঠাকুরগাঁওয়ের শিশু মালেকা হত্যাকারির ফাঁসির দাবি পরিবারের রায়ের অপেক্ষা

এগার বছর ধরে চলমান মামলার রায় ঘণিয়ে আশায় ঠাকুরগাঁওয়ের শিশু মালেকা হত্যাকারির ফাঁসি দাবি করেছেন পরিবার ও স্বজনরা। পরিবারের দাবির সাথে একমত পোষন করেস্থানীয়রা বলছেন দৃষ্টান্তমুলক বিচার না হলে অপরাধমুলক কার্যক্রম আরো বাড়বে।

২০১০ সালের ১লা নভেম্বর ধর্ষণ চেস্টায় ব্যর্থ হয়ে সালন্দর ইউনিয়নের শিংপাড়া গ্রামের আব্দুল মালেকের ছয় বছরের শিশু কণ্যা মালেকা আক্তারকে হত্যা অভিযোগ উঠে পাশের গ্রামের আলী ইসলাম। পরে তাকে ওই গ্রামের একটি ধাণ ক্ষেতে ফেলে রাখা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশের তদন্তে আলী ইসলাম হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। শিশু হত্যায় আলামত জব্দসহ মামলার আসামী আলী ইসলামের বিরুদ্ধে চার্জশীট দাখিল করে পুলিশ।

দীর্ঘ এগারো বছর চলমান মামলার রায়ের জন্য আদালত প্রাঙ্গণে ঘুরছেন নিহতের অসহায় পরিবার ও স্বজনরা। নিহত শিশু মালেকার বাবা আব্দুল মালেক অভিযোগ করে বলেন, গেল মাসে কয়েকটি তারিখে আদালতের বিচারক মেয়ে মালেকা হত্যার বিচার পর্যালোচনা করছেন। আমি সন্তান হারিয়েছি আসামী পক্ষ আমাকে অর্থের লোভ দেখিয়ে ভয়ভীতি প্রদান করেছে তবুও পিছ পা হইনি। কারন সন্তান হারানো বেদনা শুধু বাবা-মা বুঝে। আমি প্রশাসনসহ বিচারকের কাছে আকুতি জানাই যেখানে প্রমানিত আলী একজন খুনি তার দৃষ্টান্তমুলক বিচার না হলে এ ধরনের ঘটনা পূনরায় হতে পারে। তাই সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদান করবেন। তাহলে কেউ আর সাহস পাবে না এমন জঘন্য কাজ করার।

সালন্দর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহবুবুব আলম মুকুল, সাবেক চেয়ারম্যান মুকুট চৌধুরী, আবুল কালাম আজাদসহ এলাকার শুশীল সমাজের মানুষরা জানান, পুলিশ তদন্ত উঠে এসেছে শিশু মালেকাকে কে হত্যা করেছে। তার ফাঁসি হওয়া উচিত। বিচারক ন্যায় বিচারের স্বার্থে আসামীকে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি প্রদান করবেন।

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 24
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ