কুলাউড়ায় আরো ৩ টি মন্দির ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল এবং তিনটি পূজামণ্ডপে ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। কুমিল্লায় কথিত কুরআন অবমাননার ঘটনার জেরে এই ঘটনা ঘটে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলা শহরসহ স্থানীয় চৌধুরীবাজারে বুধবার রাতে আল ইসলাহ ও তালামীয সমর্থিত নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করেন। এরপর রাত ৮টার দিকে চৌধুরীবাজারে পূজামণ্ডপের শারদীয় শুভেচ্ছা সম্বলিত গেইট ভাংচুর করেন মিছিলে অংশ নেওয়া লোকজন। ওই রাত ১০টার দিকে কর্মধা ইউপি নলডরী কালী মন্দির, আছকরাবাদ, রাজা নগর চা বাগান মণ্ডপে ভাংচুরের ঘটনা ঘটে।

নলডরী কালি মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক বিধু মালাকার জানান, কুমিল্লার ওই ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে কতিপয় লোকজন ভাংচুর করেন। এরপর থেকে স্থানীয় সনাতন ধর্মালম্বীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।ঘটনার খবর পেয়ে রাত ১২টার দিকে জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম সফি আহমদ সলমান, ইউএনও এটিএম ফরহাদ চৌধুরীসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এছাড়া জেলা প্রশাসকের নির্দেশে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কর্মধায় ১ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাব মোতায়েন করা হয়। এ ঘটনায় কর্মধা ইউপি ১৭টি মণ্ডপের মধ্য প্রশাসনের তৎপরতায় ১৪টি মণ্ডপ বড় ধরণের নাশকতা থেকে রক্ষা পেয়েছে বলে প্রশাসনের দাবি।

কুলাউড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘এ ঘটনায় ভাংচুরকৃত মণ্ডপ কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে কুলাউড়া থানায় তিনটি পৃথক অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। মামলা দায়ের হবে। তদন্ত করে জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনী ব্যবস্থা গ্ৰহন করা হবে বলে জানান’।

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএ/টি.

  • 36
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ