জামিনে মুক্ত হয়ে আসামিপক্ষের পাল্টা মামলা

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার বাচোঁর ইউনিয়নে গাছে বেঁধে যুবককে নির্যাতনের মামলায় পাল্টা মামলা করেছে আসামিপক্ষ। গত ২৯ সেপ্টেম্বর ঠাকুরগাঁও নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে এ মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মেয়ের পরিবারের অমতে পালিয়ে বিয়ে করায় নাসিরুল ইসলাম নামের এক যুবককে নির্যাতন করার ঘটনা ঘটে ওই ইউনিয়নের ভাংবাড়ী গ্রামে। নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। এ ঘটনায় নির্যাতিত যুবকের বাবা খলিলুর রহমান বাদী হয়ে গত ২৪ সেপ্টেম্বর মেয়ের পরিবারের পাঁচজনের নামে মামলা করেন। এদের মধ্যে মেয়ের মা-বাবাকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। এর দুদিন পর তাঁরা জামিনে মুক্ত হয়ে নির্যাতিত যুবকসহ পাঁচজনকে আসামি করে মামলা দিয়েছেন।

রাণীশংকৈল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম জাহিদ ইকবাল মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গত ২৯ সেপ্টেম্বর মেয়ের বাবা করিমুল ইসলাম বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

করিমুলের করা মামলার আসামিরা হলেন রাণীশংকৈল উপজেলার ভাংবাড়ী গ্রামের নির্যাতিত নাসিরুল ইসলাম। ঘটনাটির প্রত্যক্ষদর্শী রুবেল আলম, ভাংবাড়ী দক্ষিণপাড়া এলাকার মাহাবুব আলম, দবিরুল ইসলাম ও হবিবর রহমান।

জানা যায়, ভাংবাড়ী গ্রামের করিমুলের মেয়ের সঙ্গে একই গ্রামের নাসিরুলের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। তাঁরা বাড়ি থেকে পালিয়ে গত ৯ সেপ্টেম্বর ঠাকুরগাঁও নোটারি পাবলিক কার্যালয়ে বিয়ে করার ঘোষণাপত্র নেন। সেখান থেকে তাঁরা ঢাকায় চলে যান। কয়েক দিন পর উভয় পরিবারের উদ্যোগে তাঁদের বাড়িতে ফিরিয়ে আনা হয়। এদিকে ২০ সেপ্টেম্বর বিকেলে শ্বশুরবাড়ির এলাকার একটি দোকানে চা খেতে যান নাসিরুল। এ সময় মেয়ের বাবা-মা নাসিরুলকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করেন।

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএ/এ.

  • 35
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ