জয়পুরহাটে রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের স্কুল পরিদর্শন

রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার ড. হুমায়ন কবীর বলেন ছেলেদের সাথে মেয়েদেরও যুগের সাথে তাল মিলিয়ে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হতে পারলেই দেশ ও জাতির তার কাঙ্খিত উন্নয়নের উন্নত রাষ্ট্রের মর্যাদায় নিজেকে আসীন করতে পারবে। কেননা প্রতিযোগিতায় একপায়ে দৌড়ালে যেমন  দুপায়ে দৌড়ানোর সাথে পেরে উঠা যায় না তেমনি দেশের অর্ধেক নারীকে পিছনে ফেলে রেখে প্রতিযোগিতার বিশ্বে কখনই দেশকে সামান তালে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যাবে না।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১:৩০ মিনিটে জেলা সদরের তেঘর উচ্চ বিদ্যালয় সম্মেলন কক্ষে বিদ্যালয় গর্ভনিং বডির সদস্য, শিক্ষক, সুশিল সমাজ, ছাত্র/ছাত্রী সমবিভ্যহারে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় তিনি কথাগুলো বলেছেন।

জেলা প্রশাসক শরীফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মত বিনিময় সভায় তিনি আরও বলেন, ছাত্র/ছাত্রীদের কেবল ডাক্তার-প্রকৌশলী হওয়ার লক্ষ্য নিয়ে এগুলোই হবে না। পাশাপাশি নিজেকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ, সৎ-সুন্দর, নৈতিক বলে বলীয়ান ভাল মানুষও হতে হবে। আর ভালো মানুষ হতে হলে সপ্তাহে-মাসে যে কোন একটা হলেও ভাল কাজ করার ইচ্ছা পোষণে তা পূরণ করতে হবে।

তিনি বলেন, তোমাদের ফলাফলের যোগ্যতায় বিদ্যালয়ের অহংকার ও গর্বের ধন হিসেবে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। কেননা তোমাদের দেখে তোমাদের পিছনের ছোটরাও উৎসাহিত হলে তোমাদের মত করে নিজেদের মেলে ধরতে যত্নবান হতে পারবে। তাই ভালো ফলাফলের জন্য তোমাদের পড়ার সময়কালটা পাঠচক্রের পরিকল্পনায় পাঠের চর্চায় মনোনিবেশ করতে হবে। তাহলে অবশ্যই ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে। তিনি বক্তব্যে তার শৈশব জীবনের উদাহরণ টেনে বলেন, শিক্ষকদেরও ছেলে/মেয়েদের প্রাণঢালা আদরে ও মমত্বে পাঠদানে দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করতে হবে। আমাদের ছেলেবেলায় অসুখ বিসুখে স্কুল কামাই হলে শিক্ষক যেমন সে পড়া নিজ আগ্রহে বাসায় এসে পড়িয়েছেন, তেমনটি আবার নিজেদের মেধাবিকাশের জন্য আমাদের নিজ খরচায় দুধও খাইয়েছেন। তেমনটি নিবেদন আজকেও যদি চর্চিত হয় তবে ছাত্র/ছাত্রীরা নিজেদের মেলে ধরতে সত্যিকার সহায়তা পাবে।

তেঘর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মোত্তালেবের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এস.এম সোলায়মান আলী, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরাফাত হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অশোক কুমার ঠাকুর, মিজানুর রহমান টিটো ও বিদ্যালয় গর্ভনিং বডির সভাপতি জাহিদ ইকবাল প্রমুখ।

এই পরিদর্শনকালে তিনি ক্যাম্পাসে একটি ফলজ রোপন করেন। এছাড়াও তিনি তেঘর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ও পরিদর্শন করেন এবং ছাত্র/ছাত্রীদের বাল্য বিবাহে নিরুৎসাহীত করণে সতর্ক হওয়ার তাগিদ ও প্রশাসনের সহায়তা গ্রহণের পরামর্শ দেন।

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএ/বি.

  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ