৩৫ দিন ধরে নিখোঁজ মেহেদী হাসান

নান্দাইলে মেহেদী হাসান (১৩) এক মাদরাসা ছাত্র ৩৫ দিন ধরে নিখোঁজ। সে উপজেলার শেরপুর ইউনিয়নের রাজাবাড়িয়া গ্রামের আ: আজিজের পুত্র। জানাযায়: মেহেদী হাসান কিশোরগঞ্জের ভৈরব এলাকায় একটি মাদরাসায় পড়াশোনা করতো। করোনা মহামারীতে মাদরাসা বন্ধ হলে কাজের সন্ধানে সে ঢাকায় পাড়ি জমায়।

ঢাকা পল্লবী এলাকায় মেহেদী হাসান তার দুলাভাই সিরাজুল ইসলামের বাসায় থাকতো। গত ১লা সেপ্টেম্বর রাত ১০ টায় ম্যানশন ১১/সি, বাসা-০৫ রোড-০১ পল্লবী বাসা থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসে নি।নিখোঁজের ঘটনায় অনেক আত্নীয় স্বজনের বাড়িতে খোঁজাখুজির পর ও তার সন্ধান পায়নি পরিবার। পরে ৫ সেপ্টেম্বর নিখোঁজের ঘটনায় পল্লবী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। পল্লবী থানার ডায়েরী নং ৩৯৬।

নিখোঁজের ডায়েরীর বিবরনে জানা যায় : মেহেদীর পড়নে গেঞ্জি ও কালো প্যান্ট ছিল। গায়ের রং ফর্সা, উচ্চতা ৫ ফুট, স্বাস্থ্য হালকা পাতলা।

মেহেদী হাসানের পিতা আ: আজিজ বলেন,আমি অত্যন্ত গরিব মানুষ। ছেলেটাকে হারিয়ে স্ত্রীকে নিয়ে এক মাস ধরে খেয়ে না খেয়ে দিন পার করছি। বেঁচে আছে না মরে গেছে আল্লাহ্ জানে।

পল্লী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সামিউল ইসলাম বলেন, বাসা থেকে কাউকে না বলে বের হয়ে গেছে। নিখোঁজের ঘটনায় মেহেদীর দুলাভাই থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছে। আমরা খোঁজাখুঁজি করতেছি।

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 50
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ