পাঁচবিবিতে অল্পের জন্য রক্ষা পেল পাটের গুদাম 

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে ৩৩ হাজার কেভি বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের তারে কভার পাইপ লাগিয়ে ভবন নির্মাণ করেছে উচনা গ্রামের মৃত আফছার আলীর আব্দুল মালেক। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ধরঞ্জী ইউনিয়নের হাটখোলা বাজারে।অল্পের জন্য রক্ষা পেল পাটের গুদাম। আজ সোমবার সকালে সেই সঞ্চালনের লাইনের ট্রান্সমিটারের সংযোগ থেকে শর্ট সার্কিটের কারণে নির্মানাধীন ভবনের পার্শে¦ উপজেলার শ্রীমন্তপুর গ্রামের আব্দুর রশিদের পাটের গুদামে আগুন লেগে যায়। স্হানীয়রা ছুটে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসায় পাট গুদামটি বড় ধরনের অগ্নিকান্ডের হাত থেকে রক্ষা পায়। এতে করে গুদামের কিছু পাট পুড়ে যায়। তবে বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ বলছে, অনুমতি ছাড়াই বে-আইনী ভাবে সঞ্চালন লাইনে প্লাস্টিকের কভার তার লাগানোয় ওই ভবন মালিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্হা নেওয়া হবে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,উপজেলার ধরঞ্জী ইউনিয়নের উচনা গ্রামের মৃত আফছার আলীর ছেলে আব্দুল মালেক হাটখোলা বাজারে একটি ভবন নির্মাণ শুরু করেন। ভবনটির দ্বিতীয় তলা নির্মাণ করার সময় উপর দিয়ে যাওয়া পল্লী বিদ্যুতের ৩৩ হাজার কেভি. সঞ্চালন লাইন থাকায় আঃ মালেক পাঁচবিবি পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির অনুমতি ছাড়াই নিজের ই”ছায় স্হানীয় ইলেকট্রিশিয়ান দ্বারা ৩৩ হাজার কেভি এর সঞ্চালন লাইনটিতে প্লাস্টিকের পাইপ লাগিয়ে ভবন নির্মাণ সম্পন্ন করে। এসময় সঞ্চালন লাইনের একটি তার দ্বিতীয় তলার বেলকুনির ভিতর দিয়ে একই ভাবে পাস করে।

এ বিষয়ে ভবন মালিক আব্দুল মালেকের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন,তারটি সমস্যা হওয়ার কারণে যেন বিপদ না হয় সে কারণে কভার লাগিয়েছি। এতে দুর্ঘটনা ঘটবে আমি বুঝতে পারিনি। জয়পুরহাট পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির পাঁচবিবি জোনাল অফিসের ডিজিএম আব্দুল বারী বলেন,৩৩ হাজার কেভির বিদ্যুৎ লাইনে প্লাস্টিকের কভার কোন কাজে আসবে না। তবে পল্লীবিদ্যুৎ কৃর্তপক্ষের অগোচরে বে-আইনী ভাবে সে কাজটি করছে। বিষয়টি দেখার পর
বিদ্যুৎ আইনে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্হা নেওয়া হবে।

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 29
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ