নারী ভোটারদের কাছে ফারহানা আফরিন মুন্না হবে নতুন চমক!

চকরিয়া পূর্ব বড়ভেওলা ইউপি নির্বাচন-

পরিস্থিতি কখন কাকে কোথায় নিয়ে দাঁড় করায় সেটা বোঝা বড় মুশকিল। এটা নাকি নিয়তির খেলা। এই কয় দিন আগেও তিনি ছিলেন পুরোপুরি গৃহিণী। সাংসারিক কাজে কর্মে ব্যস্ততা ছিল যার নিত্ত সঙ্গী। কিন্তু পরিবেশ পরিস্থিতি ও মরহুম স্বামী সাবেক ছাত্রলীগ নেতার স্বপ্ন পূরণে তাকে অন্দরমহল ছেড়ে লোকারণ্যে নিয়ে এসেছে। নিয়ে এসেছে এক কঠিন বাস্তব মুহুর্তে।

এখন তল্লাটের এই প্রান্ত থেকে ওই প্রান্তে অভিরাম ছুটে চলছে মরহুম স্বামীর দেখিয়ে যাওয়া পথ অনুসরণ করে। দেখিয়ে যাওয়া পদচিহ্ন ধরে।

বলছিলাম সমকালীন ঘটে যাওয়া কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার পূর্ব বড় ভেওলা ইউনিয়নের ইতিহাসের আলোচিত নারকীয় হত্যাকাণ্ডের শিকার সাবেক ছাত্রনেতা ও জনপ্রিয় তরুণ আওয়ামিলীগ নেতা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী শহীদ নাছির উদ্দিন নোবেল এর সহধর্মিণী ফারহানা আফরিন মুন্নার কথা।

আফরিন মুন্না তাঁর মরহুম স্বামী নাছির উদ্দিন নোবেলের দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন এলাকার জনপ্রতিনিধি হয়ে মানুষের সেবা করার শেষ ইচ্ছে টুকু পূর্ণ করতে এবং নাছির উদ্দিন নোবেলের শত শত শোকাভিভূত কর্মী সমর্থক সহ এলাকাবাসীর বিশেষ অনুরোধে আগামী ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হতে যাচ্ছেন।

এরই মধ্যে গত ২৮ সেপ্টেম্বর এলাকার সর্বসাধারণের উপস্থিতিতে ফারহানা আফরিন মুন্না নিজেকে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হওয়ার আনুষ্ঠানিক ভাবে ঘোষণা দেন। এই কয়েক দিনে তিনি যথেষ্ট সাড়াও পাচ্ছেন, বিশেষ করে মহিলা ভোটারদের। সেই সাথে মানুষের ভালোবাসা ও সহানুভূতির কমতি নেই।

তবে এতে করে পূর্ব বড় ভেওলা ইউপি নির্বাচনে এবং গ্রাম্য রাজনীতিতে এক নতুন সমীকরণ ঘটতে যাচ্ছে বলে অনেকে মনে করেন। যদি নাছির উদ্দিন নোবেলের প্রতি সাধারণ মানুষের অকুণ্ঠিত ভালোবাসা ও হৃদয়স্পর্শী শোককে সঠিক ভাবে কাজে লাগে পারলে আফরিন মুন্না বিজয়ী হবার সম্ভাবনা বেশী।

এখানে একটি ঘটনা উল্লেখ করি, বিগত ২০১১ সালে ২৬ ডিসেম্বর সাতকানিয়া উপজেলার নলুয়া ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও স্থানীয় আওয়ামিলীগ নেতা অধ্যাপক নুরুল আবছারকে একদল দুষ্কৃতকারী সন্ধ্যার সময় নিজ ঘরে ঢুকে গুলি করে নির্মম হত্যা করেন।

এরপর উপ-নির্বাচনে তার স্ত্রী তসলিমা আকতার মরহুম স্বামীর ক্লিন ইমেজ ও জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে বিপুল ভোটের ব্যবধানে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। সেই গৃহবধূ তসলিমা আকতার বর্তমানেও নলুয়া ইউনিয়ন পরিষদের একমাত্র নারী চেয়ারম্যান।

হ্যাঁ, মানুষ হিসেবে আমরা স্বপ্ন দেখি, তাই আমাদের স্বপ্ন দেখার সার্থকতাও অপরিসীম। মানুষের দৃষ্টিশক্তি যদি ঈগলের মতো হতো, তাহলে নাকি ১০ তলা ভবনের ছাদে দাঁড়িয়ে মাটিতে থাকা পিঁপড়াকেও মানুষ দেখতে পেত। অদৃষ্ট সেই দৃষ্টি আমাদের দেয়নি; কিন্তু দিয়েছে অন্তর্দৃষ্টি, দিয়েছে স্বপ্ন দেখার সক্ষমতা। তাই আমরা স্বপ্ন দেখি। বার বার স্বপ্ন দেখি। তাই আমরা স্বপ্ন বাস্তবায়নে আপ্রাণ চেষ্টা করি।

ভদ্র, নম্র ও শিক্ষিত ফারহানা আফরিন মুন্না আগামী পূর্ব বড় ভেওলা ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে এবারই প্রথম কোন নারী নির্বাচনে অংশ নিতে যাচ্ছেন। ফারহানা আফরিন মুন্না পূর্ব বড়ভেওলা ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের সিকদার পাড়ার মরহুম এনাম সওদাগরের কন্যা ও সন্ত্রাসীদের হাতে নিহত নাছির উদ্দিন নোবেলের সহধর্মিণী।

পূর্ব বড় ভেওলা হল আফরিন মু্ন্নার জন্মস্থান বাপের বাড়ী ও শ্বশুর বাড়ী। তার শৈশব কৈশোর কেটেছে এই এলাকায়। আর আশপাশ এলাকায় তাদের অনেক আত্মীয়স্বজন রয়েছেন। ভোটের হিসাব-নিকাশে আত্মীয়তারও একটা প্রভাব পড়ে। মরহুম স্বামীর স্বপ্ন পূরণের অদম্য ইচ্ছে নিয়ে মুন্না জনগণের সেবক হতে রাজনীতিতে মাঠে নামেন।

এদিকে, ফারহানা আফরিন মুন্না গত কয়েক দিনে কয়েকটি পাড়ায় গণসংযোগ ও মানুষের সাথে দেখা সাক্ষাত করেন। এতে ব্যাপক উৎসাহ ও সাড়া পাচ্ছেন। বিশেষ করে নারী ভোটারদের। নারী ভোটারদের কাছে মুন্না হল নতুন চমক। তাই আফরিন মুন্না জনগণের আগ্রহ, উৎসাহ, সমর্থন আর ভালোবাসায় আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে শেষ পর্যন্ত লড়ে যাবেন। লড়ে যাবেন স্বামীর স্বপ্ন পূরণের। সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মুন্না চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে একমাত্র নারী প্রার্থী মুন্না।

তিনি পূর্ব বড়ভেওলা ইউপি থেকে জনগণের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন। মুন্না পূর্ব বড়ভেওলা ভেওলা ইউনিয়ন সিকদার পাড়ায় জন্মেছেন, বেড়ে উঠেছেন। সিকদার সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও আওয়ামী নেতা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী নাছির উদ্দিন নোবেলকে বিয়ে করে শিকদারপাড়ায় শ্বশুর বাড়ি। এখন ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন। এলাকার উন্নয়নে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে চান।

এলাকার কয়েকজন ভোটারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, একদল নারী কর্মীর পাশাপাশি পুরুষ কর্মীদের নিয়ে মুন্না দিন-রাত প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। নারী ও পুরুষ ভোটারদের সাথে নিয়ে এ-গ্রাম থেকে ও-গ্রামের ভোটারদের কাছে ছুটছেন। পাড়ায় পাড়ায় চলছে বৈঠক। হাটবাজারেও চলছে গণসংযোগ। নারী হিসেবে পিছিয়ে নেই এই সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী মুন্না।

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 26
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ