বালাগঞ্জে বাজারের নামকরণ নিয়ে বিভেদ, আইনশৃঙ্খলার অবনতির শঙ্কা

সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন

বালাগঞ্জ উপজেলার গৌরিপুর ইউনিয়নের মুসলিমাবাদ এলাকায় একটি বাজারের নামকরণ নিয়ে বিবেদ ও বারবার রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এমন পরিস্থিতে বিষয়টি দ্রুত শান্তিপূর্ণ সমাধান না হলে এলাকার আইনশৃংলার অবনতির আশংকা রয়েছে বলেও দাবি করেছেন এলাকার সাধারণ মানুষ। শনিবার সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এমন আশঙ্কার কথা জানান মুসলিমাবাদ গ্রামের বাসিন্দারা। সংবাদ সম্মেলনে গ্রামবাসীর পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সৈয়দ শরীফ আহমদ।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, মুসলিমাবাদ গ্রামের আশপাশে কোন হাটবাজার ছিলো না। স্থানীয়দের সুবিধার্থে এলাকারবাসীর উদ্যোগে মুসলিমাবাদ ইসলামিয়া আলিম মাদরাসার পাশে একটি হাটবাজার স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়। যেখানে একক কোনো ব্যক্তি, গোষ্ঠীর মালিকানা নয়।

সম্প্রতি দুই পরিবার তাদের নামে বাজারটি প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছেন, এমন অভিযোগ করে তিনি বলেন, চৌধুরী পরিবার ও সিরাজ বেগের পরিবারের একপক্ষ চৌধুরী বাজার এবং অপর পক্ষ সিরাজ বেগের নামে বাজার প্রতিষ্ঠা করতে উঠে পড়ে লেগেছেন। এতে করে তাদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে অনেকেই রক্তাক্ত জখম হয়েছেন। এলাকার সর্বস্তরের সাধারণ মানুষের মতামতকে উপেক্ষা করে তারা এ প্রচেষ্টা অভ্যাহত রেখেছেন। শুধু তাই নয় এই দুই নামে অবৈধভাবে সাইনবোর্ড স্থাপন কের এলাকায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সরকারের কোন অনুমোদন না থাকলেও বাজারের নামে কেউ কেউ সাইনবোর্ড বসিয়ে দেন। এসব বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে একাধিকবার আবেদন করা হলে পুলিশের পক্ষ থেকেও তদন্ত করা হয়েছে। পুলিশ সকল পক্ষকে শান্তিÍ শৃঙ্খলা বজায় রাখতে বলেছেন। এলাকায় শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে এসব নামে বাজারের নামকরণ করা থেকে সংশ্লিষ্টদের বিরত থাকার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, এলাকায় ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাওয়া আসা করতে ভয় পাচ্ছে। বিশেষ করে সিলেট বিভাগের দুটি উপজেলা বালাগঞ্জ ও রাজনগরের মানুষের চলাচলের কেন্দ্রস্থল হওয়ায় ভৌগলিক কারণে বাজারটি বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

জনসাধারণের স্বার্থে গ্রামবাসী প্রশাসনিক পর্যায় থেকে শান্তি পূর্ণ সমাধান চান জানিয়ে তিনি বলেন, এ বিষয়ে সিলেটের জেলা প্রশাসক বরাবর দুই দফা লিখিত আবেদন করা হয়েছে। এলাকার স্বার্থে বিষয়টি দ্রুত শান্তিপূর্ণ সমাধানের জন্য সিলেটের জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি তিনি আহবান জানান। এ সময় এলাকাবাসীর পক্ষে আরও উপস্থিত ছিলেন, শেখ সোহেল আহমদ বকুল, মির্জা হোসেন চিনু, আবজল তালুকদার, শেখ রাজিব আহমদ, মির্জা আব্দুল করিম ফিরু, মির্জা এনামুল হক পারুল, শেখ মোক্তার আলী, শেখ মুজিবুর রহমান, আব্দুল মতিন হেরম তালুকদার প্রমুখ।

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ