মাধবখালী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জনগণের জরিপে এগিয়ে কাজী মিজানুর রহমান লাভলু

আসন্ন ইউপি নির্বাচন ২০২১ ইং পটুয়াখালী জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলার ১নং মাধবখালী ইউনিয়নের নৌকা মনোনয়ন প্রত্যাশী চার নেতা এরা হলেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জনাব কাজী মিজানুর রহমান লাভলু- ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক হালিম মোল্লা মোঃ মালেক মাষ্টার ও বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান মনির তালুকদার তাহারা প্রতেকেই নৌকা প্রতিক নিয়ে ইউপি নির্বাচন করার জন্য আশা ব্যাক্ত করেছেন। ২৫/০৯/২০২১ ইং তাং এক স্বাক্ষাত কারে ১নং মাধবখালী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ ফিরোজ আলম, ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ইউপি সদস্য মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও আওয়ামীলীগের সভাপতি আমিনুল ইসলাম এবং ২নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ খলিলুর রহমান এরা সকলেই বলেন মরহুম কাজী মোকলেছুর রহমান মির্জাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ও জন নেত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন, আর্শিবাদ পুষ্ট একজন ত্যাগি নেতা ছিলেন তার মৃত্যুতে জাতীয় সংসদে নিরবতা পালন করে ছিলেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ সকল সংসদ সদস্যরা এই মহান আওয়ামীলীগ নেতার সুযোগ্য পুত্র জনাব কাজী মিজানুর রহমান লাভলু তিনি বর্তমান ১নং মাধবখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি। ছাত্র জীবন থেকেই তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে লালন পালন করে আসছেন। গরীব দুঃখী অসহায় বিপদগ্রস্থ মানুষের খোজ খবর রাখেন প্রতি নিয়ত, যার কারনে তিনি ইউনিয়নের সকল জনগনের আস্থার পাত্র হয়ে উঠেছেন।

বি.এন.পি জামাত সরকারের শাষনামলে বার বার হামলার শিকার হয়েছেন, নির্যাতিত হয়েছেন এই আপোষহীন নেতা, তাহারা আরো বলেন কাজী মিজানুর রহমান লাভলু ইউপি নির্বাচনে নৌকা প্রতিক পেলে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হবেন। বাকি তিন জন নৌকা মনোনয়ন প্রত্যাশিরা প্রত্যেকেই তাদের নানা বিধ হিংস্র কর্ম কান্ডের জন্য জনগন থেকে বিচ্ছিন্ন তাদের নাম শুনলেই আতঙ্ক বিরাজ করে জন মনে। এদের মধ্যে বর্তমান চেয়ারম্যান মনির তালুকদার নৌকা প্রতিক নিয়ে বিগত নির্বাচনে ইউপি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকা মনোনিত প্রার্থীর কঠোর বিরোধীতা করেন প্রকাশ্যেই। তার নির্যাতন ও হামলার শিকার হন অনেক নিরিহ জনগন। স্বাক্ষাত কারে সাধারণ জনগনের মধ্যে জব্বার হাং, মোসলেম সাজ্জাল, শাহজাহান, রিপন হাং সহ অনেকেই বলেন আমরা মনির তালুকদারকে আর চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চাই না। তিনি ইউনিয়ন পরিষদের বরাদ্দকৃত অনুদান তার নিজ আত্মীয় স্বজন ও বি.এন.পি জামাতের লোকজনদের বাড়ি বাড়ি পৌছাইয়ে দেন। অসহায় সর্বহারা জনগনকে সব কিছু থেকেই বঞ্চিত করেছে বার বার। তাহারা আরো বলেন সাধারণ সম্পাদক হালিম মোল্লা ও মালেক মাষ্টার নৌকা প্রতিক পেতে ব্যর্থ অন্য প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করার সম্ভবনা রয়েছে ।

মাধবখালী ইউনিয়নের সকল ভোটারের একটাই দাবী আসন্ন মাধবখালী ইউপি নির্বাচনে কাজী মিজানুর রহমান লাভলু কে আঃলীগ দলীয় মনোনীত প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন করবেন বলে আশাবাদী। প্রচারেঃ ১নং মাধবখালী ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণ।

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 81
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ