ঝিনাইগাতীতে ইউএনও’র মুঠোফোন নম্বর ক্লোন করে চাঁদা দাবি

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফারুক আল মাসুদের সরকারি মুঠোফোন নম্বর ‘ক্লোন’ করে প্রতারণার চেষ্টা করেছে একদল দুর্বৃত্ত। আজ রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টার পর থেকে ওই নম্বর ‘ক্লোন’ করে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছে চাঁদা দাবি করা হয়েছে। এ ঘটনায় সামাজিক মাধ্যমে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাসের মাধ্যমে উপজেলার সবাইকে সাবধান থাকতে অনুরোধ জানান ইউএনও ফারুক আল মাসুদ।

উপজেলার কাংশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহুরুল হক বলেন, আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ইউএনওর সরকারি মুঠোফোন নম্বর থেকে ইউএনও’র পরিচয় দিয়ে ফোন করা হয়। এ সময় ওপর প্রান্ত থেকে একজন গত কয়েকদিন আগে আমার পরিষদে হওয়া অডিট কার্যক্রমে বিভিন্ন ত্রুটি ধরা পড়েছে বলে আমাকে জানান। এ ত্রুটিগুলোর জন্য ইউপি সচিবের মাধ্যমে এক লাখ টাকা দাবি করেন। ব্যাপারটি প্রতারণা বুঝতে পেরে তিনি ফোনের লাইনটি কেটে দেন এবং ইউএনওকে বিষয়টি জানান।

এ বিষয়ে ইউএনও ফারুক আল মাসুদ বলেন, উপজেলার কাংশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে এভাবে ফোন করে টাকা চাওয়া হয়েছে। চেয়ারম্যানরা তাৎক্ষণিক তাকে ফোন করে ব্যাপারটি জানিয়েছেন। তার সরকারি মুঠোফোন নম্বর ‘ক্লোন’ করে একটি প্রতারক চক্র এমন করছে। এর আগেও এমন অভিযোগ পাওয়া গিয়েছিল। তিনি বলেন, এ ঘটনা থেকে রক্ষা পেতে নিজের নম্বর দিয়ে তার ফেসবুক আইডিতে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন তিনি। সেখানে তিনি প্রতারণা থেকে রক্ষা পেতে সবাইকে সচেতন থাকতে অনুরোধ জানান।

স্ট্যাটাসটিতে তিনি লেখেন, আসসালামু আলাইকুম। সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সরকারী মোবাইল নম্বর (০১৭৮৪০৯০৮০৬) ক্লোন করে ২/১ জনের কাছে টাকা চাওয়া হয়েছে। সকলকে এ বিষয়ে সতর্ক থাকার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে কথা বলতে গেলে ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) মোহাম্মদ ফায়েজুর রহমান জানান, ইউএনও ফারুক আল মাসুদ বিষয়টি আমাদের কাছে মৌখিকভাবে জানিয়েছেন। এখনও কোনো লিখিত অভিযোগ করেননি তিনি। তবে অভিযোগ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএ/এস.

  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ