আত্মসাৎ মামলায় সৈয়দপুরের পাঁচজনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা

নীলফামারীর সৈয়দপুরে ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান ‘আলম তারকাটা ফ্যাক্টরী ও এলাহী কুঠির শিল্প ও আলম হার্ডওয়্যার’ এর ৭ কোটি ২৭ লাখ ৯৮ হাজার ৩৩৭ টাকা আত্মসাৎ মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করেছে আদালত।

গেল ১৫ সেপ্টেম্বর বিজ্ঞ আমলী আদালত-২ সৈয়দপুর থেকে এই গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করা হয়। মামলার আসামীরা হলেন সৈয়দপুর শহরের হাওয়ালদারপাড়ার শামিম মিস্ত্রির ছেলে ফখরে আলম(৫৩), রসুলপুর এলাকার আব্দুল লতিফের ছেলে জামিল আহমেদ(৫২), কাজীরহাট এলাকার আজগার আলীর ছেলে হায়দার আলী(৪৭), পুরাতন বাবুপাড়ার মুসার ছেলে মোহাম্মদ আরশাদ(৪৫) এবং হাতীখানা ক্যাম্প এলাকার আমিন মোল্লার ছেলে মোহাম্মদ আমজাদ(৪৫)। দুই মামলার বাদী ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান ‘আলম তারকাটা ফ্যাক্টরী ও এলাহী কুঠির শিল্প ও আলম হার্ডওয়্যার’ হাজী জামসেদ আলমের মেয়ে ফাতেমা খাতুন। একটি মামলায় ফখরে আলম ও জামিল আহমেদ ৬ কোটি ৩১লাখ ৫৩ হাজার ৩৩৭টাকা এবং অপরটিতে ফখরে আলম ও জামিল ছাড়াও হায়দার আলী, আরশাদ এবং আমজাদ ৯৬ লাখ ৪৫ হাজার টাকা আত্মসাতের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলা সুত্র জানায়, দীর্ঘদিন থেকে আসামীরা বিভিন্ন দায়িত্ব নিয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছিলো। এরই মধ্যে গেল বছরের পহেলা জানুয়ারী থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৬কোটি ৫৩লাখ ৩৩৭টাকা এবং একই বছরের পহেলা জানুয়ারী থেকে ১০ অক্টোবর পর্যন্ত ৯৬ লাখ ৪৫ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেন।

মামলার বাদী উল্লেখ করেছেন, এনিয়ে গত ২৬এপ্রিল শালিস বৈঠকে তারা উপস্হিত হলেও টাকা দিতে অস্বীকার করেন এবং কিছুই করতে পারবেন না বলে হুমকী দেন। বাধ্য হয়ে গত ২১জুন পাঁচ জনের নামে আদালতে মামলা করেন ফাতেমা খাতুন। মামলায় আদালত আসামীদের বিরুদ্ধে সমন জারী করলেও তারা উপস্হিত না হওয়ায় গত ১৫সেপ্টেম্বর আদালত থেকে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করা হয়।

ফাতেমা খাতুনের মামলার আইনজীবী আল মাসুদ চৌধুরী জানান, গত ২১সেপ্টেম্বর গ্রেফতারী পরোয়ানা ইস্যু করা হয়েছে। যার স্মারক নং ১২৮৪/৩৬। আশা করি আসামীরা গ্রেফতার হবেন।

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ