২৪ ঘন্টায় প্রস্তুত রক্তদাতা নান্দাইল উপজেলা ব্লাড ডোনেট সোসাইটির

অসহায় মানুষের দৌড়ঘুরায় রক্ত পৌঁছে দিতে দিন রাত কাজ করছে স্বেচ্ছাসেবীরা। বর্তমানে স্বেচ্ছাসেবীদের অবদান সমাজের প্রতিটি স্তরে স্তরে । নান্দাইল উপজেলা ব্লাড ডোনেট সোসাইটি তার ব্যতিক্রম নয়। ২০১৮ সালে এক ঝাঁক মেধাবী তরুণ যুবকদের প্রচেষ্ঠায় গড়ে তুলে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর থেকে নিরলস ভাবে স্বেচ্ছায় কাজ করে যাচ্ছে সংগঠনটি।

অসহায় ব্যক্তিদের রক্তের জন্য হাহাকার দূর করতে ২৪ ঘন্টায় ডোনার প্রস্তুত রাখে সংগঠনটি। উপজেলার প্রতিটি ঘরে ঘরে ব্লাড ডোনার তৈরি করতে নিয়েছে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ। বিভিন্ন সময়ে বিনামূল্যে ব্লাড গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন আয়োজনের মাধ্যমে ব্লাড টেষ্ট করে শিক্ষার্থীদের রক্তদানে উৎসাহিত করছে।

তাছাড়াও বিভিন্ন সময়ে অসহায় ব্যক্তিদের পাশে থেকে আর্থিক সহযোগিতা করে যাচ্ছে নান্দাইল উপজেলা ব্লাড ডোনেট সোসাইটি।
সংগঠনে ১হাজারের বেশি সদস্য থাকলেও নিয়মিত ৫শত সদস্য রক্ত দিয়ে যাচ্ছে। এখন পর্যন্ত ১ হাজার ২শত ব্যাগ রক্ত দিয়েছে সংগঠনের সদস্যরা।

রক্তদানে উদ্বুদ্ধ করতে সেরা ১১২ জন রক্তদাতাকে সম্মাননা স্মারক ক্রেস প্রদান করেন সংগঠনটি । তাছাড়া গত করোনা মহামারীতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার উপর সারা নান্দাইলে মাইকিং,লিফলেট, পোষ্টার সহ প্রতিটি মসজিদ মসজিদে সাবান পানির ব্যবস্থা করেন।

সংগঠনের সদস্য রক্তদাতা ফয়সাল আহমেদ বলেন, গরিব ও অসহায় ব্যক্তিদের রক্তের অভাবে চিকিৎসা হয় না। আমরা রক্ত ব্যবস্থা করে দেই। এ পর্যন্ত আমি ৯ বার রক্ত দিয়েছি।

রক্তগ্রহীতা ৬ বছরের শিশু জারিফের পিতা রিপন ফকির বলেন, আমার ছেলে জন্মের পর থেকে থ্যালাসেমিয়া রোগে ভুগছে। প্রতিমাসে ১ ব্যাগ ও পজেটিভ রক্ত লাগে। নান্দাইল উপজেলা ব্লাড ডোনেট সোসাইটির সদস্যরা প্রতি মাসে রক্তের ব্যবস্থা করে দেয়।

নান্দাইল ব্লাড ডোনেট সোসাইটির সভাপতি মো. সুমন মিয়া বলেন, আমাদের সংগঠনটি একটি অরাজনৈতিক সংগঠন। দলমত নির্বিশেষ আমরা সবাজসেবায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছি। মানব সেবাই হলো সর্ব উৎকৃষ্ট সেবা।

সহ-সভাপতি তাইজুল ইসলাম মীর বলেন, আমাদের উদ্দেশ্য একটাই, আমরা মানবসেবায় রক্তদানে নান্দাইল তথা সারা দেশে ঘরে ঘরে রক্তদাতা তৈরি করবো। আমার মূলত আড়াল থেকে আমরা মানবিক কাজ গুলো করে থাকি।

নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ আবুল মনসুর বলেন, আমি নান্দাইলে নতুন যোগদান করেছি। নান্দাইল উপজেলার অনেক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন আছে কারো সম্পর্কে আমার জানা নেই।

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 272
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ