জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে কথা বলতে তালেবানের চিঠি

গত ২০ সেপ্টেম্বর থেকে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশন শুরু হয়েছে। যা চলবে ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। এতে যোগ দিয়ে কথা বলতে চায় আফগানিস্তানের তালেবান সরকার। সে লক্ষ্যে জাতিসংঘকে একটি চিঠি দিয়েছে সংগঠনটি। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে বিবিসি।

জানা যায়, মঙ্গলবার জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের মুখপাত্র স্টিফানে ডুজারিখ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার দাবি করে তালেবান। এরপর তারা দেশটিতে নতুন সরকার গঠন করেছে। তালেবানের অন্তর্বর্তীকালোন সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হয়েছেন আমির খান মুত্তাকি। তিনি চিঠি পাঠিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিবের কাছে। চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেছেন, জাতিসংঘের উচ্চপর্যায়ের এ সম্মেলনে অংশ নিতে চায় তালেবান।

তবে তালেবানকে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশন যোগ দিতে দেওয়া হবে কি না, তা নিয়ে একধরনের জটিলতা তৈরি হয়েছে। কারণ, ক্ষমতাচ্যুত আফগান সরকারের জাতিসংঘে নিযুক্ত স্থায়ী প্রতিনিধি গোলাম ইসাকজাইও এই পরিষদে যোগ দিতে চান।

যার কারণে, কারা এ অধিবেশনে যোগ দিতে পারবে, এটা এখনো নির্ধারণ করা এখনো সম্ভব হয়নি। সাধারণত জাতিসংঘের নয় সদস্যের ক্রিডেনশিয়াল কমিটি এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে। আর সাধারণ পরিষদের অধিবেশন শেষ হওয়ার আগে এ কমিটি বৈঠকে বসবে কি না, তাও নিশ্চিত নয়।

এ ছাড়া তালেবানের পক্ষ থেকে কেউ যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে গিয়ে সরাসরি জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে বক্তব্য দেবেন, নাকি ভিডিও বার্তা দেবেন, তা নিশ্চিত নয়।

এদিকে ক্ষমতাচ্যুত আফগান সরকারের রাষ্ট্রদূত গোলাম ইসাকজাইকে সরিয়ে দেওয়ার বিষয়টিও চিঠিতে উল্লেখ করেছে তালেবান। সেখানে চিঠিতে বলা হয়েছে, ইসাকজাই আর আফগানিস্তানের প্রতিনিধিত্ব করছেন না। তার জায়গায় সুহাইল শাহিনকে স্থানীয় প্রতিনিধি হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছে তালেবান।

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ