নোয়াখালীতে ১ পৌরসভা ও ১৩ ইউপি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ

সোমবার নোয়াখালীর কবিরহাট পৌরসভা, হাতিয়া ও সুবর্ণচর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তবে মেয়র পদে আওয়ামীলীগ প্রার্থী জহিরুল হক রায়হান বিনা প্রতিদন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ায় করিহাট পৌরসভায় শুধুমাত্র কাউন্সিলর পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

নির্বাচনকে সামনে রেখে গতকাল রোববার প্রতি কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জামাদি পৌঁছানো হয়েছে। একই সঙ্গে কেন্দ্রগুলোতে নিরাপত্তায় নিয়োজিত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীও পৌঁছেছে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সকল প্রকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছে প্রশাসন।

স্ব স্ব নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জেলার কবিরহাট পৌরসভা নির্বাচনে ৯টি কেন্দ্রে ১৫ হাজার ৪৫১ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। ৯টি ওয়ার্ডে ৩০ জন প্রার্থী কাউন্সিলর পদে লড়বেন। পুরুষ সদস্য পদে ২৫ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৫ জন প্রতিদন্দ্বিতা করছেন। নির্বাচনকে সুষ্ঠু করতে ১ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ৫ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, প্রতি কেন্দ্রে ৫ জন পুলিশ থাকবেন, প্রতি কেন্দ্রে ৯ জন আনসার, এছাড়া বিজিবি ২ প্লাটুন, র‌্যাবের ৪টি টিম, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ৪টি মোবাইল টিম ও র‌্যাবের ৩ টি স্ট্রাইকিং ফোর্স দায়িত্ব পালন করবেন।

জেলার হাতিয়া উপজেলায় ৭টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সেখানে ৮৬টি কেন্দ্রে ১ লাখ ৬৮ হাজার ৫৫৬জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। ৭টি ইউনিয়নে মোট চেয়ারম্যান প্রার্থী ৩৩জন, পুরুষ সদস্য পদে ২৯৩ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৮৮ জন প্রতিদন্দ্বিতা করছেন। নির্বাচনকে সুষ্ঠু করতে ১৬ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ৩ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ৬৭৫ জন পুলিশ, ১৪৬২ জন আনসার, ৬ প্লাটুন কোস্টগার্ড, ২ প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাবের ৫টি টিম, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ৭টি মোবাইল টিম ও ৩ টি স্ট্রাইকিং ফোর্স দায়িত্ব পালন করবেন।

এছাড়া সুবর্ণচরে ৬টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদন্দ্বিতা করছেন ২৭ জন। পুরুষ সদস্য পদে ২০৩ ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৬৬ জন নির্বাচনী লড়াইয়ে নেমেছেন। ৬ টি ইউনিয়নে ৫৬ টি কেন্দ্রে ১ লাখ ১৯ হাজার ৮১৬জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এ উপজেলার ৬টি নির্বাচনী এলাকায় নিরাপত্তায় ১১ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ২ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ৫৫৭ জন পুলিশ, ৯৫২ জন আনসার, ৬ প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাবের ৮টি টিম, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ৬টি মোবাইল ফোর্স ও ২টি স্ট্রাইকিং ফোর্স নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করবেন।

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ