হবিগঞ্জে লাখাইয়ে কৃষ্ণপুর গণহত্যা দিবস পালিত

হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার কৃষ্ণপুর গণহত্যা দিবস পালিত হয়েছে। শোক-শ্রদ্ধা আর বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শনিবার ঐতিহাসিক কৃষ্ণপুর গণহত্যা দবিস পালন করেন স্থানীয় গ্রামবাসী।

১৯৭১ সালরে ১৮ সেপ্টেম্বর রাজাকাদের সহযোগিতায় পাক-হানাদার বাহিনি ১২৭ জন নিরীহ গ্রামবাসীকে নির্মমভাবে হত্যা করে।

শনিবার সকালে জাতীয় সংগীতরে মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুরু হয়। পরে কৃষ্ণপুর বধ্যভূমিতে সকল শহীদের স্মরণে পুষ্পাঞ্জলি র্অপণ করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন লাখাই উপজলো পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকটে মুশফিউল আলম আজাদ, উপজেলা সহকারী কমিশন (ভূমি) রুহুল আমিন, উপজলো ভাইস চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম আলম, লাখাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইদুল ইসলাম সহ বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তির্বগসহ কৃষ্ণপুর গ্রামবাসী উপস্থতি ছিলেন।

কৃষ্ণপুর গ্রামটি লাখাই উপজলোর পশ্চিমের একেবারে শেষ প্রান্তে অবস্থিত। যোগাযোগের তেমন ভালো মাধ্যম নেই। র্বষায় নৌকা আর শুকনো মৌসুমে পায়ে হেটে চলা ছাড়া বিকল্প কোন ব্যবস্থা নেই। হিন্দু-মুসলমান একসাথে গ্রামরে বাস করলেও ঐ এলাকায়  ৯৫ শতাংশ লোকই হিন্দু র্ধমাবলম্বী। তাদের ভাগ্যে জুটছে না তেমন উন্নয়নের ছোয়া।

১৯৭১ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর একসঙ্গে লাইনে দাঁড় করিয়ে রাজাকারের সহযোগতিায় ১২৭ জন গ্রামবাসীকে হত্যা করেছিল পাক-হানাদার বাহিনী। আহত হয়েছিলেন শতাধিক নারী-পুরুষ। সেই সময় এতো মরদহে এক সঙ্গে সৎকারের কোনো ব্যবস্থা না থাকায় পাশের নদীতে মরদেহগুলো ভাসিয়ে দিয়েছিলেন স্থানীয় নারীরা।

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএ/আর.

  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ