শ্রীমঙ্গলে কেজিতে বই বিক্রি, প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ

মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার ২ নং ভূনবীর ইউপি ভূনবীর দশরথ হাই স্কুল এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক ও মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ঝলক চক্রবর্তী’ উপর সরকার থেকে বিনামূল্য বিতরণের জন্য বই বিদ্যালয়ে পাঠানো জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক কেজি দরে বিক্রি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

এমন স্পর্শ কাতর বিষয় নিয়ে শহর জুড়ে নানা গুঞ্জন শুরু হয়েছে। সচেতন নাগরিকরা এমন কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানিয়ে, অন্যায়কারীর যথাযথ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেছেন।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, উপজেলার ভূনবীর ইউপি ভুনবীর দশরথ উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজ থেকে মাধ্যমিক স্তরের বিভিন্ন বিষয়ের ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির বই ফেরিওয়ালার নিকট বিক্রি করা হয়েছে।

সরকারী বিনামূল্যে দেওয়া বই বিক্রি করার মধ্যে রয়েছে বাংলা, ইংরেজী, গণিত, সাধারণ বিজ্ঞান, ইসলাম ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, হিন্দু ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, গাহস্থ্য বিজ্ঞান, কৃষি শিক্ষা, পৌরনীতিসহ আরো অন্যান্য বিয়য়ের বই। এর মধ্য রয়েছে ২০২০ শিক্ষা বর্ষের নতুন বই ও ২০১৯ শিক্ষা বর্ষের উলুকাটা বই।

সরকারী বই বিক্রির বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত ‘প্রধান শিক্ষক ঝলক চক্রবর্তী বলেন স্কুলের দফতরি ভুলবশত বই গুলো হকারের কাছে বিক্রি করেছেন’।

দফতরির কাছে বই বিক্রি বিষয়ে জানতে চাইলে দফতরি জানায় ‘প্রধান শিক্ষকের অনুমতি সাপেক্ষেই তিনি বই গুলো বিক্রি করেছেন’।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা দীলিপ কুমার বর্ধন বলেন, কোন বিদ্যালয় থেকে সরকারি বই এভাবে কেজি দরে বিক্রি করার নিয়ম নেই। অবন্টনকৃত বই গুলো উপজেলা মাধ্যমিক বই বিতরণ ও সংরক্ষণ কমিটির নিকট জমা দিতে হয়। পরে এগুলো দরপত্র আহবান করে বিক্রি করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলাম জানান, বিষয়টি তদন্ত করে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কারন সরকারি বই এভাবে বিক্রি করার কোন নিয়ম নেই। এ ব্যাপারে অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে তদন্ত অনুযায়ী।

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএ/টি.

  • 35
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ