শেরপুরে যৌতুক মামলায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী কারাগারে

শেরপুরে সম্পর্কের সূত্রে বিয়ের কিছুদিন পরই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী স্ত্রীর পরিবারের কাছে যৌতুক দাবির চাঞ্চল্যকর এক মামলায় কাউছার সাকিব (২৪) নামে এক পাষণ্ড প্রেমিক স্বামীকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। বুধবার দুপুরে উভয় পক্ষের শুনানী অন্তে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আলমগীর আল মামুন তাকে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

সাকিব শ্রীবরদী উপজেলার খরিয়াকাজীরচর ইউনিয়নের লংগরপাড়া গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের মাস্টার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাদীপক্ষের আইনজীবী তাজুমুল ইসলাম।

নালিশী মামলা ও আদালত সূত্রে জানা যায়, কাউছার সাকিব ২০২০ সালের ১৩ ডিসেম্বর সম্পর্কের সূত্রে শেরপুর সদর উপজেলার মুকছুদপুর টালিয়াপাড়া গ্রামের এক অবসরপ্রাপ্ত সেনাসদস্যের কন্যা ও রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অনার্স তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীকে। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই সাকিব স্ত্রীর পরিবারের কাছে যৌতুক দাবি করে আসছিল। ওই অবস্থায় গত ৭ মে ১০ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবি করে তা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে স্ত্রীকে নিজ বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয় সাকিব।

এছাড়া তার অজ্ঞাতসারে গত ৪ জুন শহরের বাগরাকসা মহল্লার আফসানা জামান সেতু নামে এক মেয়েকে দ্বিতীয় বিয়ে করে এবং ১৩ জুন প্রথম স্ত্রীকে তালাক প্রদান করে।

ওই ঘটনায় সাকিবের বিরুদ্ধে যৌতুক নিরোধ আইন এবং মুসলিম পারিবারিক আইনে আদালতে দুটি পৃথক মামলা দায়ের হলে গত ২৩ আগস্ট সে আদালতে হাজির হয়ে আপোসের শর্তে ৮ সেপ্টেম্বর বুধবার পর্যন্ত অন্তঃবর্তীকালীন জামিন লাভ করে। কিন্তু ওই জামিনের মেয়াদ শেষ হলেও আপোস-মিমাংসা না হওয়ায় তাকে কারাগারে পাঠায় আদালত।

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএ/এস.

  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ