নকলায় কবর থেকে লাশ চুরি, সারা এলাকায় তোলপাড়

শেরপুরের নকলায় কবর খুঁড়ে দুটি লাশ চুরি করার ঘটনা ঘটেছে। সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) রাতে উপজেলার টালকী ইউনিয়নের দক্ষিণ রামেরকান্দি সামাজিক গোরস্থান থেকে লাশ দুটি কঙ্কাল চুরি করেনেয় চুরচক্রের সদস্যরা। এনিয়ে এলাকার সদ্য প্রয়াত লোকের স্বজনরা তাদের পরিবারের সদস্যদের কবর থেকে লাশ চুরি হওয়ার আশঙ্কায় চিন্তিত।

যে সকল মরহুমের লাশ চুরি হয়ে যায় তারা হলেন- রামেরকান্দি এলাকার মৃত কছিমদ্দিনের ছেলে মরহুম আব্দুল জলিল ও একই এলাকার মৃত বছর উদ্দিনের ছেলে মরহুম মিরাজ আলী। এছাড়া ওই কবরস্থানে সমাহিত স্থানীয় হানিফ উদ্দিন মেম্বারের স্ত্রী মৃত জোসনা বেগমের কবরটি সামান্য খুঁড়লেও লাশ চুরি হয়নি।

দক্ষিণ রামেরকান্দি সামাজিক গোরস্থান ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি রেজাউল করিম মুকুল জানান, আব্দুল জলিল (৮৩) পবিত্র শব-ই-বরাতের পরের দিন তথা গত ৩০ মার্চ মঙ্গলবার এবং আব্দুল জলিল মারা যাওয়ার ২-৩ মাস আগে মিরাজ আলী (৭০) বার্ধক্য জনিত কারনে মারা যান। পরে তাদের দুইজনের মরদেহ দক্ষিণ রামেরকান্দি সামাজিক গোরস্থানে পাশাপাশি কবরে সমাহিত করা হয়।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাক জানান, মরহুম আব্দুল জলিলের ছেলে শামছুদ্দিন মঙ্গলবার সকালে প্রতিদিনের ন্যায় ব্রাশ করতে করতে তার বাবার কবরের কাছে গিয়ে দেখেন তার বাবার কবরসহ তিনটি কবর খুঁড়া। পরে লোকজনকে জানালে এলাকাবসীরা নিশ্চিত হয়যে, দুটি কবর থেকে লাশ চুরি হয়েছে। পরে নকলা থানায় খবর দিলে থানার এসআই চন্দন কুমার পালসহ সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

টালকী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হযরত আলী জানান, দক্ষিণ রামেরকান্দি সামাজিক গোরস্থানটি নতুন করা হয়েছে। তিনি জানান, এই গোরস্থানে মাত্র কয়েকটি মরদেহ কবরস্থ করা হয়েছে। কবরস্থানটি ব্যস্ততম পাকা রাস্তার সাথে হওয়া সত্বেও এখান থেকে লাশ চুরি হয়ে যাওয়া খুবই দূরদর্শীতার ব্যাপার।

যে বা যারা এমন স্থান থেকে লাশ চুরি করতে পারে, তারা অবশ্যই দূরদর্শ চোরচক্র। এ চুরচক্রকে খোঁজে বেরকরে আইনের আওতায় আনার দাবী জানান তিনি।

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএ/এস.

  • 20
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ