মানবতার ক্রন্দন- শামছুল হক শামীম

আমার এক চোখে অস্রু আরেক চোখে ক্রোধ,
মানবতার মানুষ হওয়া এত সোজা ওরে নির্বোধ?
সমাজ টা তে তোমাদের মতো অসভ্য না থাকতো,
স্বর্গহতে মৃদুমন্দ সুখের বাতাস সত্যি সত্যি বইতো।

ইচ্ছে করেই স্বার্থেের জন্য জীবন পরিবারে দাও হানা,
সকল ধর্মে বিশদভাবে স্রস্টা হতে কঠোর করে মানা।
পরের সুখে পরের ধনে তোমার কেন লোলুপ দৃষ্টি,
পারবে কি একরত্তি সুখ তার মতো করতে সৃষ্টি।

সমাজ সেবি সম্পাদক সভাপতি হতে বড় মাস্টার,
লেবাসধারী শয়তান ধৃষ্টতা দেখলে লজ্জা হয় স্রষ্টার।
মুনাফেকের সব গুন চরিত্রে সাবলিল ভাবে স্পষ্ট,
আলোআধারে লুকোচুরি কি দারুণ অভিনয়ে শ্রষ্ঠ।

গর্ধব সমাজ বুঝে মানুষ বুঝে তবু চুপ কেন জানিস?
মজলুমের চোখে নোনা পানির পরিণতি কি মানিস?
আরে কিট বাউন্ডেলে যেথায় শিখলি ভদ্রতা সভ্যতা,
সেই সমাজে সেই লোক গুলিকে দিলি কষ্টের আদ্রতা!

রংবাহারী পাঞ্জাবি মোটর বাইক চটি এতকিছু কি ছিল?
সুরম্য অট্টালিকা জমি প্রতিপত্তি ঔদ্ধত্য কি করে হল?
নেতা তোর ক্ষমতা দরাদরি বাহাদুরি কতদিন বল?
মৃত্যুর হাতছানি সর্বদা কানা কানি অপক্ষা কর যাবি রসাতল।

অত্যাচারি পাপিষ্ঠ সেজে পৃথিবীতে থাকবে আজীবন ধরে?
শেষ পরিনতির কথা না ভেবে ক্ষতি করছ দম্ভ ভরে?
জুতাপেটাও হয়েছে সমাজপতি ভেবে দেখ তোর কি গতি?
উপর হতে আসছে ধেয়ে ধ্বংসের কুন্ডলী ছাড় পাবি না এক রতি।

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 100
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ