আদিতমারীতে জমিজমা জের ধরে উভয় পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১০

জমিজমা জের ধরে পূর্বপরিকল্পিত অনুযায়ী দুই গ্রুপের সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০ জন গুরুত্বরআহত সংবাদ পাওয়া গেছে। এলাকা বাসী আহতদের উদ্ধার করে আদিতমারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন ।

জানাযার লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার ৩ নং কমলাবাড়ী ইউনিয়নের কালীস্থান বাজার এলাকায় স্থানীয় প্রতিবেশী লিটন গং এবং সাবেক ইউপি মেম্বার এর ছোট ভাই ইসমাইল হোসেন এর সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হয়ে আছে। উক্ত জমিজমা বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়ভাবে একাধিকবার বৈঠক হলেও জমিজমার বিষয়টি সমাধান করতে পারেনি থানা পুলিশ। অবশেষে আদিতমারী থানা পুলিশের কাছে উভয়পক্ষ লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে দীর্ঘদিন ধরে থানা পুলিশে তদন্তের গাফিলতির কারণে উভয় পক্ষের সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। জমিজমার বিষয়টি সমাধান না হওয়ায় শেষ পর্যন্ত ইসমাইল হোসেন ও লিটন মিয়া উক্ত জমির উপর ১৪৪ ধারা জারি করেন, নালিশি জমি মালিক সূত্রে লিটন মিয়া অংশ পায়। স্থানীয় জনগণ জানায় স্থানীয় দালালদের মাধ্যমে বিষয়টি সুরাহা না হওয়ায় উভয় পক্ষ কে উস্কে দিয়ে ঝগড়া বিবাদ সৃষ্টি করে দেয়। বিষয়টি নিয়ে আদিতমারী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে একাধিকবার তদন্ত গেলেও ঝগড়া-বিবাদে এড়াতে কোন প্রকার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারেন নি ।

স্থানীয় জনসাধারণ জানায় অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা গাফিলতির কারণে নালিশি জমির উপর লিটন মিয়া ঘর উঠায়। গত ৩ দিন আগে অপর পক্ষের ইসমাইল হোসেন গতকাল শনিবার (২৮ আগস্ট) দুপুরে ঘর ভেঙ্গে ফেলে দেয় লিটন মিয়ার। এরই জের ধরে গতকাল শনিবার বিকেল বেলা ইসমাইল হোসেন ও লিটন মিয়া দুই গ্রুপের সংঘর্ষ বেধে যায় এতে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন গুরুতর আহত হয়। আহতদের মধ্যে লিটন মিয়ার গং দের আদিতমারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৫ জন কে ভর্তি করেন, ইসমাইল হোসেনের গং ৫ জন কে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। হাসপাতালে চিকিৎসা থাকায় এখনো পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা দেওয়া হয়নি তবে মামলা দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে বলে ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য গাজী উদ্দিন আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আদিতমারী থানা অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম এর সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ডেইলিরুপান্তর/আবির

  • 86
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ