পারিবারিক সুরক্ষা আইন কার্যকর করার দাবী

 

‘সরকারী ও বেসরকারী সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের সাথে নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে আমাদের করণীয় বিষয়ক সমন্বয় সভা নীলফামারীতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। পল্লী শ্রী এর ‘অধিকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে নারী ও কন্যা শিশুর সুরক্ষাথ প্রকল্পের আয়োজনে সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এই সভা অনুষ্ঠিত হয় মঙ্গলবার দুপুরে।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) জেসমিন নাহার। পল্লী শ্রীথর ব্যবস্থাপক সেলিম রেজার সভাপতিত্বে সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন ‘অধিকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে নারী ও কন্যা শিশুর সুরক্ষাথ প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক তাইবাতুনন্নেহার প্রীতি।

এতে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা রাশেবুল হোসেন, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা শামসুল ইসলাম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আহমেদ আহসান হাবিব, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা মঞ্জুর মোর্শেদ তালুকদার, চাপড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান, ট্রাক ট্যাংকলড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি গোলাম রহমান ডালু বক্তব্য দেন।

সভায় জানানো হয় গেল চলতি বছরের ছয় মাসে (জানুয়ারী-জুন) নীলফামারীর পঞ্চপুকুর ও চাপড়া সরমজানী ইউনিয়নে ৩৬টি পারিবারিক সহিংসতার ঘটনা ঘটে। এরমধ্যে শারীরীক ১০টি, মানসিক ২৪টি, অর্থনৈতিক ২টি রয়েছে।

পল্লী শ্রীথর ‘অধিকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে নারী ও কন্যা শিশুর সুরক্ষাথ প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক তাইবাতুনন্নেহার প্রীতি বলেন, করোনা প্রাদুর্ভাবের এই সময়ে অনেক শিশু বাল্য বিয়ের শিকার হয়েছে। হয়তো জোড় করে কিংবা পরিবারের চাপে কিংবা অর্থনৈতিক দৈন্যতার কারণে কিংবা সামাজিক অস্থিরতার কারণে তাদের বিয়ে হয়েছে। বাল্য বিয়ে রোধে সরকারের এত পদক্ষেপের পরও বাল্য বিয়ে রোধ করা যাচ্ছে না। এজন্য সবার আগে আমাদের পরিবার থেকে সচেতন হতে হবে। সভায় জনপ্রতিনিধি, এনজি প্রতিনিধি, নারী নেত্রী, উন্নয়ন কর্মী, সরকারী বিভিন্ন দফতর প্রধানগণ অংশগ্রহণ করেন।

সভায় সহিংসতা প্রতিরোধে জনসচেতনা মূলক প্রচারণা বৃদ্ধি, বাল্য বিবাহ রোধ ২০১৭ আইন প্রচার ও বাস্তবায়ন, পারিবারিক সহিংসতা প্রতিরোধ ও সুরক্ষা আইন ২০১০ কার্যকর, ধর্ষণ, যৌন সহিংসতা নারী ও কন্যা শিশুর জন্য বিভিন্ন সেবা ও সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করার দাবী জানানো হয়।

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএ/এন.

  • 383
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ