তারাগঞ্জে দুই দিনে দুই ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

গত দুই দিনে দুই ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে তারাগঞ্জ থানা পুলিশ। শনিবার বিকালে তারাগঞ্জ উপজেলার আলমপুর ইউনিয়নে ও রবিবার ভোরে রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়ক সংলগ্ন কুর্শা ইউনিয়নের একটি আম বাগানে অপর লাশটি উদ্ধার করা হয়।

তারাগঞ্জ থানা সূত্রে জানা গেছে, শনিবার তারাগঞ্জ থানার আলমপুর ইউনিয়নের ভীমপুর ধনিপাড়া গ্রামের রাশেদুল ইসলামের স্ত্রী পারভীন বেগম (৩০) এর সাথে ঝগড়া হয় রাশেদুলের অপর ভাই সাদেকুল ইসলামের স্ত্রী শারমিন বেগমের (২৬) সাথে। ঝগড়ার পর বিকেলের দিকে রাশেদুলের শোবার ঘর থেকে রহস্যজনকভাবে পারভীন বেগমের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে গ্রামবাসী থানায় খবর দেয়।

খবর পেয়ে তারাগঞ্জ থানা পুলিশ বিকাল অনুমান ৪টায় ঝুলন্ত অবস্থায় পারভীনের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

অপরদিকে রবিবার সকালে রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়কের তারাগঞ্জ উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নে অবস্থিত ব্রাদার্স কোল্ড স্টোরেজ এর সামনে একটি আম বাগানের আম গাছের ডালে ঝুলন্ত অবস্থায় একজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে তারাগঞ্জ থানা পুলিশ।

ভোরে এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে কুর্শা ইউনিয়নের ঘনিরামপুর বাঙ্গালীপুর গ্রামের বছির উদ্দিনের পুত্র কেন্দু মিয়ার (৩৫) ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে তারাগঞ্জ থানা পুলিশ।

তারাগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফারুক আহম্মেদ বলেন, অভিযোগ না থাকায় কেন্দু মিয়ার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এর আগে শনিবার বিকেলে উদ্ধারকৃত পারভীন বেগমের পিতৃপরিবার অভিযোগ করায় পারভীনের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য (রবিবার) সকালে রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলে হত্যা নাকি আত্মহত্যা তা সুস্পষ্ট হবে।

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএ/জে.

  • 42
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ