বিশ্বনাথ উপজেলা চেয়ারম্যানকে নিয়ে ফেসবুকে প্রবাসীর মানহানিকর বক্তব্য : থানায় জিডি

সিলেটের বিশ্বনাথের উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা এসএম নুনু মিয়াকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কুরুচি ও মানহানিকর অশালীন বক্তব্য দেয়ায় এক যুক্তরাজ্য প্রবাসীর বিরুদ্ধে শুক্রবার রাতে বিশ্বনাথ থানায় সাধারণ ডায়রি করেছেন উপজেলা চেয়ারম্যান (জিডি নং-৯০৮)।

প্রবাসী আতাউর রহমান সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার লাউতলা গ্রামের মৃত আছান উল্লার ছেলে।

জিডি সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার একটি ফেসবুক পেইজে প্রবাসী আতাউর রহমান একটি সালীশকে কেন্দ্র করে উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম নুনু মিয়াকে জড়িয়ে কুরুচি ও মানহানিকর অশালীন এবং আক্রমনাক্তক বক্তব্য উপস্থাপন করেন। মনগড়া বানোয়াট এ বক্তব্যের কোন সত্যতা নাই বলে দাবি করেন নুনু মিয়া।

তিনি উল্লেখ করেন, বিগত এক বছর আগে প্রবাসী আতাউর রহমান বিশ্বনাথে তার শশুর বাড়ির ব্যাপারে একটি শালিস বৈঠকে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের মধ্যস্থতায় অনুষ্ঠিত হয়। সেই বৈঠকে শালিসগণের কথানুযায়ী এক লক্ষ টাকা আমার মাধ্যমে প্রদান করেন প্রবাসী এবং সবার উপস্থিতিতেই তিনি টাকা সমজিয়া নেন।

নুনু মিয়া আরও উল্লেখ করেন, তিনি ঐ শালিস বৈঠক উপস্থিত ছিলেন না এমনকি ওই শালিসের শালিসিয়ান হিসেবেও তাঁর নাম ছিল না। এক বছর পর প্রবাসী একটি স্বার্থন্বেষী মহলের প্ররোচনায় সম্পূর্ণ অসত্য ও আশালীন বক্তব্য, সম্পূর্ণ মানহানিকর ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

প্রবাসীর এ বক্তব্য উপজেলা চেয়ারম্যনের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে এবং দলের প্রতিও কটাক্ষ করেছেন ওই প্রবাসী। তিনি এই বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে প্রত্যাহারপূর্বক সরিয়ে ফেলার দাবি জানান ও তাঁর বিরুদ্ধে আশালীন ও মানহানিকর বক্তব্যের বিচারও দাবি করেন।

এ ব্যাপারে থানার অফিসার ইনচার্জ গাজী আতাউর রহমান বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান শুক্রবার রাতে একটি সাধারণ ডায়রি করেছেন। এ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে।

সিলেট/এসডি

  • 82
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ