লিটনের না থাকা নিয়ে সংশয়, দুই কর্তার বিপরীতমুখী বক্তব্য

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে সিরিজ শেষ করেই বাংলাদেশ সফরে আসবে ক্রিকেটের অন্যতম পরাশক্তি দল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। ২৯ জুলাই বাংলাদেশের আসার পর তিন দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে অনুশীলনে নামবে তারা। তাদের দেয়া ১০ দিনের বায়োবাবলের শর্ত মানতে এখন কোয়ারেন্টিনে আছেন প্রায় ১৫০ জন ম্যাচ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারী।

এদিকে তিনটি সিরিজ জয়ের পর ২৮ জুলাই দেশে ফেরার কথা রয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। দেশে ফিরেই আবার বায়োবাবলে ঢুকে যেতে হবে টাইগারদের। এদিকে এই শর্ত মানতে যেয়ে অজি সিরিজ থেকে বাদ পড়ে গেছেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। তাছাড়া, ইঞ্জুরির কারণে দলের সাথে থাকছেন না ওপেনার তামিম ইকবালও। এবার জানা গেলো ইঞ্জুরিতে থাকা মুস্তাফিজুর রহমানও অজিদের বিপক্ষে প্রথম দুই টি-২০ ম্যাচে থাকছেন না। তবে শেষে ধোঁয়াশাটা রয়ে গেছে লিটন দাসকে নিয়ে।

জনপ্রিয় ক্রিকেট ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফোকে দেয়া এক বার্তায় প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু জানিয়েছেন, দ্বিতীয় বা তৃতীয় টি-২০ থেকে খেলতে পারবেন লিটন দাস ও মুস্তাফিজুর রহমান। তিনি জানিয়েছেন,

“লিটন এবং মুস্তাফিজ দ্বিতীয় বা তৃতীয় টি-২০ (অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে) থেকেই খেলতে পারবে বলে আশা করি। আমার ওদের নিয়ে খুব বেশি শঙ্কিত নই। তারা সময়মতোই মাঠে ফিরবে বলে আশা করি এবং পুরো দল নিয়েই আমরা আত্মবিশ্বাসী।”

অন্যদিকে, দেশের ক্রিকেটের সর্ব্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বিসিবির অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান দেশের শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যম প্রথম আলোকে জানিয়েছেন শ্বশুরের অসুস্থার কারণে ২৬ জুলাই দেশে ফিরছেন লিটন। তার ভাষ্যে, “লিটনের শ্বশুর অসুস্থ শুনেছি। তাই তাঁকে ফিরে আসতে হচ্ছে।”

পরিবারের সাথে দেখা করতে হলে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার দেয়া বায়োবাবল নীতির বাইরে যেতে হচ্ছে লিটন দাসকে। সেদিক বিবেচনায় অস্ট্রেলিয়া সিরিজে খেলা হচ্ছে না তার। তবে, লিটনের না থাকার ব্যাপারে বোর্ডের দুই দায়িত্বপ্রাপ্ত দুই কর্তা যে সমন্বয়হীনতার পরিচয় দিয়েছেন তাতে তো আবারও প্রশ্নবিদ্ধ বিসিবি।

ডেইলিরূপান্তর/আরএ

  • 180
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ