আইপিএল আয়োজন করতে চায় শ্রীলঙ্কা

করোনার জন্য আইপিএল স্থগিত রেখেছে বিসিসিআই। কিন্তু টুর্নামেন্ট বাতিল হয়নি। এখনও বাকি আছে টুর্নামেন্টের ৩১টি ম্যাচ। আর আইপিএল কোনও কারণে বাতিল হয়ে গেলে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের ক্ষতি হবে প্রায় ২৫০০ কোটি টাকা। বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলী নিজে এই কথা জানিয়েছেন মিডিয়াকে।

 

এই ক্ষতি সামাল দিতে হলেও টুর্নামেন্টের বাকি অংশ আয়োজন করতে হবে। এখন কোথায় হবে আইপিএলের বাকি অংশ, সেটাই বড় প্রশ্ন। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদন অনুযায়ী, করোনার মধ্যে ভারতে হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ। তাহলে বিদেশের মাটিতেই হতে পারে পরের ম্যাচগুলো। এর মধ্যে প্রথমে আসছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের নাম। এরপরই আসে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার নাম। এবার জানা গেল, শ্রীলঙ্কাও চাইছে আইপিএলের বাকি ম্যাচগুলো আয়োজন করতে।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, আগামী সেপ্টেম্বরে নিজেদের ঘরের মাঠে আইপিএলের বাকি অংশ আয়োজন করতে চায় শ্রীলঙ্কা। ডেকান ক্রনিক্যালকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছেন শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের ম্যানেজিং কমিটির প্রধান প্রফেসর অর্জুনা ডি সিলভা।

ডি সিলভা বলেন, চলতি বছরের জুলাই-আগস্ট মাসে আমাদের দেশে শ্রীলঙ্কা প্রিমিয়ার লিগ আয়োজন করা হবে। ফলে আমাদের দেশের ক্রিকেট পরিকাঠামো যে একেবারে তৈরি সেটা তো বুঝতেই পারছেন। তা ছাড়া আমাদের দেশের কোভিডের হার খুবই কম। যদিও শুনছি আরব ও ইংল্যান্ড আইপিএল আয়োজন করতে চায়। তবে আমরাও কিন্তু পিছিয়ে নেই। বিসিসিআই কর্তারা রাজি হলে আমরা এই প্রতিযোগিতা আমরা আয়োজন করতেই পারি।

এর আগে গতকাল শুক্রবার ক্রিকেটভিত্তিক ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইনফো জানিয়েছে, আইপিএলের বাকি অংশ আয়োজন করতে এরই মধ্যে আগ্রহ প্রকাশ করেছে ইংল্যান্ডের চারটি কাউন্টি ক্লাব মিডলসেক্স, সারে, ওয়ারউইকশায়ার ও ল্যাঙ্কাশায়ার।

এ বিভাগের আরো সংবাদ