কোটচাঁদপুরে চলছে অবৈধ ইট ভাটা

ঝিনাইদহ জেলার কোটচাঁদপুর উপজেলার সাবদারপুর ইউনিয়ের ফসলি জমির মাঠে গড়ে তুলেছে অবৈধ ড্রাম চিমনীর ইট ভাটা। কোটচাঁদপুর উপজেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ।

সরজমিনে তথ্যানুসন্ধান করতে গিয়ে জানা যায়, অত্র এলাকায় কৃষকদের তীব্র আপত্তি থাকা সত্বেও সাবদারপুর ইউনিয়নের দূর্বাকুন্ড গ্রামে জৈনক তুহিন হোসেন নেতৃত্বে চলছে অবৈধ ইট ভাটা। ভাটার স্থলে গিয়ে দেখা যায় ইট ভাটার সব কিছুই অনিয়মতান্ত্রিক। ভাটা নির্মানে মানা হয়নি বাংলাদেশে সরকারের কেনো নিয়ম নীতি।

এখানে ফসলি জমি নষ্ট করে জবর দখল করে ইট ভাটা নির্মান করেছে আইন কে তোয়াক্কা নাকরে ইট ভাটায় ড্রাম চিমনী ব্যবহার করেছে। দেশীয় বিভিন্ন গাছ ইট পোড়ানোর জ্বালানী হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

মুঠো ফোনে কথা হয় ভাটার মালিক পক্ষের একজন যিনি ওই ইউনিয়নের তুহিনের ইট ভাটার পার্টনার। তিনি সাংবাদিকদের জানান,আমার ২০২০ সালে ইট ভাটা নির্মানের জন্য অনুমদন পেতে ঝিনাইদহ জেলা ফায়ার সায়ার সার্ভিস অফিস ও ঝিনাইদহ অধিদপ্তরে আবেদন করেছি। তারা এখনো কোন অনুমতি দেয়নি। তবে আমি সরকারী আয়কর পরিশোধ করে ভাটা চালাচ্ছি কোন মতে। তবে এটা মাঠের ভিতরে সমস্যা কোথায়?

ভাটায় কর্মরত শ্রমিক অনেকেই নাম না প্রকাশ করায় সর্তে সাংবাদিকদের দের জানান, ২ বছর ধরে এই মাঠে ইট ভাটা নির্মান এবং ইট পোড়ানোর কাজ চলছে। ইট ভাটার চার পাশে ফসিল জমির বিশাল মাঠ। মাঝ খানে এই ভাটা চলছে। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার ন করে কি ভাবে ভাটা চালানো হচ্ছে সেটা আমাদের জানা নেই যাহা পরিবেশের জন্য মারাত্বক হুমকি ক্ষতিকর। ড্রাম চিমনী ইট ভাটার নির্মান এবং য ভাটায় গাছ জ্বালানি হিসাবে ব্যবহার করা হয় সেটা কতোটা আইন সম্মত?

এই বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তী পক্ষের কাছে এলাকা বাসী সহ কৃষকদের দাবি অবৈধ এই ইট ভাটা উচ্ছেদ করে ফসলি জমিকে ধংসের হাত থেকে রক্ষা ও পরিবেশকে দুষন মুক্ত করতে ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক সহ উর্ধতন কতৃপক্ষের আসু হস্তক্ষেপ কামনা করছে এলাকা বাসী।

 

 

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএফ/এস

এ বিভাগের আরো সংবাদ