কঠোর লকডাউনে সংকটে মধ্যবিত্ত, নিন্মবিত্ত ও ক্ষুদ ব্যবসায়ীরা

পহেলা রমজান থেকে  শুরু হওয়া কঠোর লকডাউনে সংকটে পড়েছে মধ্যবিত্ত, নিন্মবিত্ত ও ক্ষুদ ব্যবসায়ীরা। লকডাউনকে কেন্দ্র করে সরকার, বেসরকারী সংস্থা এবং ব্যক্তি উদ্যোগে নিম্নবিত্তের জন্য নানান সাহায্যের সুগোল শুনলেও মধ্যবিত্ত, নিন্ম বিত্ত, ক্ষুদ ও মাঝারী ব্যবসায়ীদের জন্য এরকম কোন সাহায্য সহযোগীতার কথা শোনা যাচ্ছে না।
গন পরিবহন বন্ধ থাকায় এই শ্রেণীর জনগন অফিস বা কর্মস্থলেও যেতে পারছে না। রাখতে পারছে না ব্যবসা খোলা রাখতে। যাতায়াতেও উভয়সংকট। একদিকে গনপরিবহনের অভাব অন্যদিকে অভাবের সেই সভাব টাকে পুজি করে রিক্সার,ভ্যান,ইজিবাইক,জেএস,এ অত্যধিক ভাড়া আদায় করে মানব জীবন দুর্বিসহ করে তুলছে।
তবে মুন্সীগঞ্জ জেলাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় জ্যাম দেখা গেছে। এই জ্যাম শুধুমাত্র প্রাইভেট কার এবং রিক্সা,ইজিবাইক, জেএস,এ সহ সি এনজির। সেই হিসাবে দেখা যায় যারা গাড়ীর মালিক এবং বিত্তবান তাদের জন্য এই লক ডাউন কোনক্রমেই বিঘ্ন সৃষ্টি করছে না। উপরুন্ত বড় ব্যবসায়ীরা সরকারের কাছ থেকে প্রচুর প্রনোদনা পেয়ে আসছে।
২১ থেকে ২৮শে এপ্রিলের লকডাউনে আবারো সেই মধ্যবিত্ত, নিন্ম মধ্যবিত্ত আর ছোট ও মাঝারী ব্যবসায়ীরাই সংকটে থাকবে। সরকারের উচিত এই শ্রেণীর দিকে সুদৃষ্টি দেওয়ার।

 

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএফ/কে.

এ বিভাগের আরো সংবাদ