নবীন প্রবীন নিয়ে সিলেট ৩ আসন জুড়ে এডভোকেট মিসবাহ সিরাজ

দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ উপজেলা নিয়ে জাতীয় সংসদের সিলেট-৩ আসন গঠিত। বিগত তিনটি নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগের মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১১ মার্চ ঢাকার একটি হাসপাতালে তিনি মারা যান। এ কারণে আসনটি শূন্য হয়েছে।

নির্বাচন বিধি অনুযায়ী এ আসনে ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করতে হবে। সে হিসাবে আগামী মধ্য জুনের মধ্যে উপনির্বাচন হওয়ার কথা। নির্বাচন সামনে রেখে ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীরা ইতোমধ্যে তৎপর হয়ে উঠেছেন। মনোনয়ন যুদ্ধে নামছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের ছয় নেতা। স্থানীয় আওয়ামী লীগের একাধিক নেতার সঙ্গে আলোচনা করে এ তথ্য জানা গেছে যারা ইতোমধ্যে তৎপর হয়ে উঠেছেন তারা হলেন-আওয়ামী লীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট নিজাম উদ্দিন, কোষাধ্যক্ষ শমশের জামাল, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের ত্রাণবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, সুপ্রিমকোর্টের সাবেক সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুর রকিব মন্টু ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক শাহ মুজিবুর রহমান জকন। এছাড়া প্রয়াত সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর স্ত্রী ফারজানা চৌধুরী ও ভাই আহমদ উস সামাদ চৌধুরীও প্রার্থী হতে পারেন।

নির্বাচন কমিশনের তথ্যমতে, এ আসনে মোট ভোটার ৩ লাখ ২২ হাজার ২৯৩ জন। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর এ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ১১টি সংসদ নির্বাচনে ছয় জন নির্বাচিত প্রতিনিধি হিসাবে এই আসনে দায়িত্ব পালন করেছেন। এর মধ্যে তিনবার নির্বাচিত হন আব্দুল মুকিত খান ও তিনবার মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী। সর্বশেষ নবম, দশম ও একাদশ সংসদ নির্বাচনে নৌকা নিয়ে নির্বাচিত হন মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী।

তবে কয়েকদিন আগে হারিয়েছেন মমতাময়ী মা-কে। মমতাময়ী মা-কে হারিয়ে শোকে কাতর ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক তিনবারের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ সিরাজ। ওই অবস্থার মধ্যে দেশব্যাপী লকডাউন ঘোষণা করা হয়। শ্রমজীবী মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েন। সাধ্য অনুযায়ী সহায়তা নিয়ে কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়াতে শুরু করেন। দিনের অধিকাংশ সময় কাটিয়ে দিচ্ছেন খেটে খাওয়া মানুষের খোঁজ খবর নিতে গিয়ে।

রমজান মাস শুরু হতেই ওই কর্মকান্ড অনেক বেড়ে গেছে মিসবাহ সিরাজের। বিশেষ করে সিলেট দক্ষিণ সুরমা, বালাগঞ্জ ও ফেঞ্চুগঞ্জ নিয়ে গঠিত সিলেট-৩ আসনের আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ব্যস্ত করে তুলেছেন মিসবাহ সিরাজকে। সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েসের মৃত্যুর পর ওই আসনটি শূন্য হয়ে পড়ে। এই অবস্থায় মিসবাহ সিরাজকে সাথে নিয়ে স্থানীয় নেতাকর্মীরা মানবিক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন।

স্থানীয় নেতাকর্মীদের উদ্যোগে আয়োজিত খাদ্য সহায়তা বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ গ্রহণ করছেন। প্রতিটি অনুষ্ঠানে অংশ নিতে স্বাস্থ্যবিধি পালনে সতর্ক নজর রাখছেন মিসবাহ সিরাজ। স্বাস্থ্যবিধির মধ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সরকারের নানান পদক্ষেপের কথা তুলে ধরছেন তিনি।

প্রতিটি অনুষ্ঠানে মিসবাহ সিরাজ জানান দিচ্ছেন সরকারের পাশপাশি দলীয় নেতাকর্মীরা ও সমাজের বিত্তবানরা সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে দেশের অবস্থা নাজুক। এই অবস্থা থেকে রক্ষা পেতে সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করার আহ্বান জানাচ্ছেন। সরকারের জারি করা বিধি নিষেধ মেনে চলার জন্যে সকলের প্রতি অনুরোধ জানান মিসবাহ সিরাজ।

দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছিল এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজের। তিনি জানালেন বালাগঞ্জ, দক্ষিণ সুরমা ও ফেঞ্চুগঞ্জের দলীয় নেতাকর্মীরা প্রতিদিনই খাদ্য সহায়তা বিতরণের অনুষ্ঠান আয়োজন করেন। ওইসব অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়। প্রতিদিন একাধিক অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করতে হয়। ওইসব অনুষ্ঠানে আমাদের প্রিয় নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিকনিদের্শনা জানিয়ে দিচ্ছি। কর্মহীন মানুষের সহায়তায় সরকারের পাশপাশি দলীয় নেতাকর্মী ও বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানাচ্ছি।

 

বায়ান্নো/ডিআরডি

এ বিভাগের আরো সংবাদ