সিলেট নগরীতে হকারদের আতঙ্ক নাম ‘মেয়র আরিফ’

 

সিলেট নগরীর ফুটপাতকে ফের যেন দখল করে নিয়েছে হকাররা। মহামারি করোনার কড়াকাড়িতেও ফুটপাতে ভিড় করে চলছে কেনাকাটার ধুম। সোমবার সকাল থেকে নগরীর ফুটপাতগুলোতে দেখা যায় এমন চিত্র।

তবে সোমবার বিকেল ৩টার দিকে অভিযানে নামেন সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এসময় মেয়রকে দেখেই দৌঁড়ে পালান হকাররা। এসময় নগরীর বন্দরবাজার ও জিন্দাবাজারে ফুটপাত দখল করে পণ্য বিক্রিকারী হকারদের হটান মেয়র আরিফ।

সিলেট নগরীর সৌন্দর্য বর্ধন ও যানজট নিরসনের লক্ষ্যে চলতি বছরের প্রথম দিন (১ জানুয়ারি) থেকে বন্দর-চৌহাট্টা পর্যন্ত সড়ক ও ফুটপাতে হকার বসা নিষিদ্ধ করে সিলেট সিটি করপোরেশন ও মহানগর পুলিশ। এ সড়কের ফুটপাত দখলমুক্ত এবং এ সড়কের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে গত জানুয়ারি মাসে নগরীর লালদীঘিরপাড়স্থ খালি জায়গায় প্রায় ১২ শ হকারকে স্থানান্তর করে সিসিক ও এসএমপি কর্তৃপক্ষ।

বন্দর-চৌহাট্টা সড়কে খানিক দূর দূর ‘হকারম্ক্তু এলাকা’ লেখা সাইনবোর্ডও গেড়ে দিয়েছে সিসিক। এতকিছুর পরও পুরোপুরিভাবে হকারদের নেয়া যাচ্ছে না লালদীঘিরপাড় মাঠে। যাদের উদ্দেশে ‘হকারম্ক্তু এলাকা’ বা ‘রাস্তা ফুটপাতে বেচাকেনা নিষেধ’ লেখা রয়েছে তারা এসবের তোয়াক্কা করছেন না। প্রথম কিছুদিন তারা রাস্তায় না বসলেও গত কয়েকদিন থেকে আবারো তারা ফুটপাত দখল করে বসতে শুরু করেছেন। বিশেষ করে বন্দরবাজার ও জিন্দাবাজার এলাকায় এমন দৃশ্য বেশি পরিলক্ষিত হচ্ছে।

বর্তমান লকডাউন পরিস্থিতিও ঠেকাতে পারছে না হকারদের। অসতর্ক ক্রেতারাও করোনা সংক্রমণের ভয়াবহ এই সময়ে ফুটপাতে ভিড় করে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত করছেন কেনাকাটা, মানছেন না স্বাস্থ্যবিধি।

এ বিভাগের আরো সংবাদ