এনআইডি সংশোধনের আবেদন একবারই

জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সংশোধনের আবেদন বাতিল হয়ে গেলে তার বিরুদ্ধে আপিলের বিষয়ে নীতিমালা করার উদ্যোগ নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। বর্তমানে খসড়া নীতিমালা প্রণয়নের কাজ চলছে। আর খসড়া নীতিমালায় এনআইডি সংশোধনের জন্য একবারই আবেদন করা যাবে। একবার আবেদন বাতিল হয়ে গেলে আর এ বিষয়ে সংশোধনের আবেদন করা যাবে না। এর জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আপিল করতে হবে।

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের পরিচালক (অপারেশন্স) মো. নুরুজ্জামান তালুকদার ইত্তেফাককে বলেন, আমরা আপাতত খসড়া নীতিমালার কাজ করছি। এখনো চূড়ান্ত কিছুই হয়নি। খসড়া করা হলে কমিশন সভায় উপস্থাপন করা হবে। তখন কমিশন এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে।

ইসির সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, এনআইডি সংশোধনের আবেদন বাতিল হয়ে গেলে এতোদিন শুধু ইসি সচিবালয়ে আপিল করা যেত। নাগরিকদের সুবিধার জন্য এখন মাঠ পর্যায়েও আপিল আবেদন করার সুযোগ দিতে চায় কমিশন। আর এ জন্য আপিল পদ্ধতি ও নিষ্পত্তি সংক্রান্ত খসড়া নীতিমালার ওপর সুপারিশ বা মতামত দিতে মাঠ পর্যায়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

অনেকের ক্ষেত্রে দেখা গেছে, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ছাড়া দাখিল করার জন্য আবেদন বাতিল হয়েছে। পরবর্তী সময় আগের মতোই তথ্য দিয়ে পুনরায় আবেদন করছেন। যার ফলে আবারও তার আবেদন বাতিল হয়ে যাচ্ছে। এতে তার অর্থ ও সময় দুটোই অপচয় হচ্ছে। তাই খসড়া নীতিমালায় একবারই সংশোধনের আবেদন করার সুপারিশ করা হচ্ছে। যাতে কারো আবেদন বাতিল হলে পরবর্তী সময় তিনি আপিল করার আগে জেনে নেবেন যে, কেন তার আবেদন বাতিল হয়েছে। এর ভিত্তিতে যেসব দলিলাদির ঘাটতি ছিল সেগুলো যুক্ত করে আপিল করতে পারবেন।

উপজেলা থেকে বাতিল হওয়া আবেদনের আপিল জেলায়, জেলায় বাতিল হওয়া আবেদনের আপিল আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস, আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসে বাতিল হওয়া আবেদনের আপিল জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগে করা যাবে।

খসড়া নীতিমালার বিষয়ে চিঠিটিতে উল্লেখ করা হয়, এনআইডি ও সংরক্ষিত তথ্য-উপাত্ত (সংশোধন, যাচাই ও সরবরাহ) প্রবিধানমালা, ২০১৪ এর ৪(৫) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী সংশোধন আবেদন বাতিল আদেশের পরবর্তী ৪৫ দিনের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আপিল আবেদন করতে হবে; এনআইডি ও সংরক্ষিত তথ্য-উপাত্ত (সংশোধন, যাচাই ও সরবরাহ) প্রবিধানমালা, ২০১৪ এর ৪(৫) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী সংশোধন আবেদন বাতিল আদেশের আবেদনের পরবর্তী ৬০ কার্যদিবসের মধ্যে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আপিল আবেদন নিষ্পত্তি করবেন; আপিল আবেদনকারী নিজ অথবা আইনানুগ অভিভাবক ১১৫ টাকা কোর্ট ফি দিয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছ থেকে সংশোধন আবেদন বাতিল আদেশের সার্টিফাইড কপি সংগ্রহ করে সংশোধনের আবেদন বাতিল আদেশের বিরুদ্ধে আপিলের নির্ধারিত ফরমে আবেদন করবেন ইত্যাদি।

সারা দেশে বর্তমানে থানা/উপজেলা, জেলা ও আঞ্চলিক এবং জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের (এনআইডি) মহাপরিচালকের কাছে মোট ১ লাখ ৬৭ হাজার ৭৬৪ ভোটারের সংশোধনের ফাইল আটকে আছে। আগামী ৩০ জুনের মধ্যে এনআইডি সংশোধনের জন্য বিশেষ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে ইসি।

 

 

 

ডেইলিরূপান্তর/আরএফ/ডি.

এ বিভাগের আরো সংবাদ