দেশে আরো বাড়ল করোনায় মৃত্যু, শনাক্ত ১৭৭৩

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল আট হাজার ৫৭১ জনে। গত ৭ জানুয়ারি করোনায় ৩১ জনের মৃত্যু হয়। এরপর থেকে ভাইরাসটিতে ২৪ ঘণ্টায় ২৫ জনের বেশি মৃত্যু হয়নি দেশে।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন এক হাজার ৭৭৩ জন। ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে পাঁচ লাখ ৫৯ হাজার ১৬৮ জনে। ১৫ ডিসেম্বরের পর এক দিনে এত বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হননি। সেদিন ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছিলেন এক হাজার ৮৭৭ জন। এরপরই কমতে থাকে সংক্রমণ। কমতে কমতে নেমে যায় ৩০০ এর নিচে।

সোমবার (১৫ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, নতুন করে ভাইরাসটি থেকে মুক্ত হয়েছেন এক হাজার ৪৩২ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন পাঁচ লাখ ১৩ হাজার ১২৭ জন।

এর আগের ২৪ ঘণ্টায় রোববার (১৪ মার্চ) ভাইরাসটিতে ১৮ জনের মৃত্যু হয় ও এক হাজার ১৫৯ জনের শরীরে শনাক্ত হয়। সে সময়ে ভাইরাসটি থেকে মুক্ত হন এক হাজার ৩৮৫ জন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ১৯ হাজার ৪২২ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষা করা হয়েছে ১৮ হাজার ৬৯৫ জনের। এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৪২ লাখ ৮৩ হাজার ২৪৬টি।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৬ জনের ২১ জন পুরুষ, পাঁচ জন নারী। তারা সবাই হাসপাতালে মারা গেছেন। এ পর্যন্ত মোট মারা যাওয়া আট হাজার ৫৭১ জনের মধ্যে পুরুষ ছয় হাজার ৪৮৪ জন, বাকি দুই হাজার ৮৭ জন নারী।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, মারা যাওয়া ২৬ জনের মধ্যে ষাটোর্ধ্ব ১৯ জন, পাঁচ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে। বাকি দুজনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে।

গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম তিনজনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এর ঠিক ১০ দিন পর দেশে ভাইরাসটিতে প্রথম মৃত্যু হয়। প্রথম মৃত্যুর তিন দিন পর করোনায় দ্বিতীয় মৃত্যু হয় ২১ মার্চ।

এদিকে, ১০ মার্চ থেকে আজ পর্যন্ত টানা ছয় দিন করোনায় আক্রান্ত হিসেবে দৈনিক হাজারের বেশি শনাক্ত হচ্ছেন। ১০ জানুয়ারি ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজার ১৮ জন। ১১ মার্চ এক হাজার ৫১; ১২ মার্চ এক হাজার ৬৬; ১৩ মার্চ এক হাজার ১৪ এবং গতকাল ১৪ মার্চ এক হাজার ১৫৯ জন ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ