দেশে করোনা সংক্রমণের এক বছর পূর্ণ হলো

দেশে করোনা সংক্রমণের এক বছর পূর্ণ হলো আজ। তবে এই বৈশ্বিক মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অন্যতম সফল দেশের নাম বাংলাদেশ। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, দৈনিক সংক্রমণ হার ৫-এর নিচে। সুস্থতার হার ৯০ শতাংশেরও বেশি। উন্নত অনেক দেশ যখন ভ্যাক্সিনেশন শুরু করতে পারেনি, বাংলাদেশ সেখানে অনেকটাই এগিয়ে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা মোকাবেলায় বাংলাদেশ উন্নত অনেক দেশের তুলনায় সফল। তারপরও সবাইকে টিকা নেয়ার পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ তাদের।

২০১৯ সালের ডিসেম্বর থেকেই কোভিড-১৯ মহামারীতে বির্পযস্ত বিশ্ব। দেশে প্রথম করোনা শনাক্ত হয় ৮ মার্চ; এরপর থেকেই মহামারী প্রতিরোধে চ্যালেঞ্জের মুখে বাংলাদেশ।

শুরুর দিকে মাস্ক, পিপিই, করোনা টেস্ট নিয়ে অগোছালো অবস্থা থাকলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে পরবর্তীতে সবকিছুই নিয়ন্ত্রণে আসে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য বলছে, এক বছরে দেশে করোনা শনাক্তের সংখ্যা সাড়ে ৫ লাখের বেশি। মৃত্যু সাড়ে আট হাজারেরও
কম। বিপরীতে করোনা জয়ীর সংখ্যা ৫ লাখেরও বেশি। দৈনিক সংক্রমণ হার ৫ এর নিচে।

বিশ্বের উন্নত অনেক দেশের তুলনায় মহামারী মোকাবেলায় বাংলাদেশের অবস্থান অনেক ভালো।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ বি এম খুরশীদ আলম বলেন, মানুষের জীবন ও জীবিকা এবং মানুষের নিরাপত্তা- এই দুটোকেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সমান গুরুত্ব দিয়েছেন। তাঁর দৃঢ়তার ফলে আমাদের অর্থনীতিটা ওইভাবে কিন্তু ধ্বংস হয়নি। আমরা যথেষ্ট ভালো অবস্থানে আছি, বরং প্লাস পয়েন্টে আছি।

সাত ফেব্রুয়ারি থেকে সারাদেশে শুরু হয়েছে ভ্যাক্সিনেশন। এখন পর্যন্ত নিবন্ধন ছাড়িয়েছে ৫০ লাখের বেশি।

মহাপরিচালক এ বি এম খুরশীদ আলম বলেন, আমরা মনে করি না যে, টিকা প্রাপ্তিতে কোন সংকট হবে।

করোনা মহামারী মোকাবেলায় ভ্যাকসিন নেয়ার পরও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।
সূত্র: একুশে টেলিভিশন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ