জাতিসংঘ ভবনের সামনে শহীদ বেদিতে শ্রদ্ধা

মহান একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে নিউইয়র্কের জাতিসংঘ ভবনের সামনে স্থাপিত শহীদ বেদিতে ফুলেল শ্রদ্ধা অর্পণ করেছেন বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া উপেক্ষা করে শত শত প্রবাসী বাঙালি সেখানে উপস্থিত হন।

মুক্তধারা ফাউন্ডেশন ও বাঙালির চেতনা মঞ্চ এই শহীদ বেদী স্থাপন করে। এসময় ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’ গানের সুরে শত কণ্ঠ মিলে এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। কিছুক্ষণের জন্য প্রবাসীরা যেন নিজ দেশ বাংলাদেশে ফিরে যান।

ততক্ষণে ফুলে ফুলে ছেয়ে যায় শহীদ বেদি। আয়োজকরা বাংলাদেশের একুশের প্রথম প্রহরের সঙ্গে মিলিয়ে নিউইয়র্ক সময় শনিবার দুপুর ১টায় কর্মসূচি শুরু করে।

আয়োজকদের পক্ষে আব্দুর রহিম বাদশা বলেন: একুশে ফেব্রুয়ারি আমাদের সকল অর্জনের প্রথম ধাপ। এর ধারাবাহিতকতায় আমরা পেয়েছিলাম স্বাধীন, সার্বভৌম বাংলাদেশ। প্রবাসীদের জাতীয়তাবোধ জাগ্রত করার লক্ষ্যেই এ ক্ষুদ্র প্রয়াস।

নিউইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন আজমল বলেন: একুশের চেতনায় বলীয়ান হয়ে আমরা বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করব।

তিনি বলেন: বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের মহাসড়কে, তাই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

এসময় বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহণে জাতিসংঘ ভবনের সামনে যেন এক মিনি বাংলাদেশ ফুটে উঠে।

এছাড়া জ্যামাইকাবাসীর উদ্যোগে স্টার কাবাব অডিটরিয়ামে ১২টা ১ মিনিটে অস্থায়ী শহীদ বেদিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় সব বয়সী মানুষ। অবশ্য সন্ধ্যার পর থেকেই বিভিন্ন শিল্পীর পরিবেশনায় ছিল দেশাত্মবোধক গান। ছিল কবিতা আবৃত্তি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ