তরুনীদের পছন্দ চা বাগান:তিন দিনের ছুটিতে সিলেটে পর্যটকদের ঢল

করোনা সংক্রমণের বিধিনিষেধে কার্যত ঘরবিন্দ মানুষ। বাংলাদেশে এ অবস্থা চলছে প্রায় এক বছর। পরিবার-পরিজন নিয়ে হাঁপিয়ে ওঠার জো। আশার কথা, বর্তমানে চলছে টিকাদান, সংক্রমণও নিম্নমুখী। এমন পরিস্থিতিতে ভ্রমণপিপাসুদের জন্য বাড়তি সুযোগ এনে দিয়েছে সাপ্তাহিক ছুটির সঙ্গে ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। তিন দিনের সরকারি ছুটিতে ঢল নেমেছে দেশের বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রে। এসব এলাকার হোটেল-মোটেল ও রেস্ট হাউজে নেই কোনো জায়গা। গতকাল শুক্রবার থেকেই বেড়েছে ভিড়। অনেকে শুক্র, শনি ও রবিবারের অগ্রিম বুকিং দিয়ে পরিবার নিয়ে এসেছেন বেড়াতে। আইনপ্রয়োগকারী সংস্থাগুলো আগেভাগেই পর্যটকদের সামলাতে ব্যবস্থা নেয়। করোনা সংক্রমণ মাথায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে তৎপরতা ছাড়াও পর্যটন কেন্দ্র সংশ্লিষ্ট এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করে।

এদিকে তিন দিনের ছুটি কাটাতে সিলেটে পর্যটকদের ঢল নেমেছে। গত বৃহস্পতিবার রাত থেকে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে মানুষ সপরিবারে সিলেটে আসতে শুরু করে। গতকাল সিলেটের জাফলং, বিছনাকান্দি, ভোলাগঞ্জসহ বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানে এবং চা বাগানগুলো দিনভর মুখরিত ছিল পর্যটকদের পদচারণায়। পর্যটকদের চাপে গতকাল ছুটির দিনেও সিলেট নগরীতে যানজট দেখা দেয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নগরীর হোটেল-মোটেল, রেস্ট হাউজগুলোর সব সিট বুকড হয়ে গেছে। অনেকে সিট না পেয়ে ফিরে যাচ্ছেন। নরসিংদী থেকে সপরিবারে বেড়াতে আসা আহমেদ আদনান বলেন, করোনার কারণে ঘরে থাকতে থাকতে সন্তানরা হাঁপিয়ে উঠেছিল। এজন্য তিন দিনের এ ছুটি ঘিরে আগেই পরিকল্পনা করেছিলাম। সিলেটে বেড়াতে এসে অনেক ভালো লাগছে। বাচ্চারা খুবই আনন্দ করছে।

তবে তরুণীরা জানিয়েছেন তাদের পছন্দ চা বাগান শীর্ষে রয়েছে । টানা তিনদিনের ছুটিকে পুঁজি করে ইতোমধ্যে সিলেটে এসেছেন কয়েক হাজার পর্যটক। সিলেটের হযরত শাহজালাল (রহ.) দরগাহ শরীফ, বিছানাকান্দি, জাফলং, লালাখাল, ভোলাগঞ্জ সাদাপাথর, তাহিরপুরের শিমুল বাগানসহ বিভাগের সকল পর্যটন স্পটে ঢল নামছে পর্যটকদের।

এ বিভাগের আরো সংবাদ