সৌদিতে বাংলাদেশি গৃহকর্মী হত্যায় একজনের মৃত্যুদণ্ড

বাংলাদেশি গৃহকর্মী আবিরন হত্যা মামলায় সৌদি আরবের এক গৃহকর্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন রিয়াদের ক্রিমিনাল কোর্ট। এ মামলায় আরও দুজনের ভিন্ন ভিন্ন শাস্তি দেওয়া হয়েছে। সোমবার রিয়াদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস এসব তথ্য জানিয়েছে।

মামলার প্রধান আসামি গৃহকর্ত্রী আয়েশা আল জিজানীর বিরুদ্ধে ইচ্ছাকৃত ও সুনির্দিষ্টভাবে হত্যাকাণ্ড সংঘটনের দায়ে আদালত ‘কেসাস’ (জানের বদলে জান) এর রায় দিয়েছেন। অপর দুই আসামির একজন গৃহস্বামী বাসেম সালেমের বিরুদ্ধে হত্যাকাণ্ডের আলামত ধ্বংস, গৃহকর্মীকে নিজ বাসার বাইরে অবৈধভাবে কাজে পাঠানো এবং গৃহকর্মীর চিকিৎসার ব্যবস্থা না করার দায়ে ৫০ হাজার সৌদি রিয়াল জরিমানাসহ বিভিন্ন মেয়াদে মোট ৩ বছর ২ মাস কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। অপর আসামি ওয়ালিদ বাসেদ সালেমকে ৭ মাস কিশোর সংশোধনাগারে থাকার আদেশ দেওয়া হয়েছে।

খুলনার পাইকগাছার বাসিন্দা ছিলেন আবিরন। তিনি ২০১৭ সালে ঢাকার একটি রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে সৌদি আরবে গিয়েছিলেন। ২০১৯ সালের ২৪ মার্চ তাকে হত্যা করা হয়। ২০১৯ সালের ২৪ অক্টোবর তার মরদেহ দেশে আনা হয়।

আবিরনকে হত্যার ঘটনায় দালাল রবিউলকে প্রধান আসামি করে ২০১২ সালের মানবপাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে বাংলাদেশেও একটি মামলা হয়েছে। মামলার তদন্তভার বর্তমানে সিআইডির কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। পাশাপাশি এই হত্যাকাণ্ডের জন্য ক্ষতিপূরণ আদায় এবং অভিযুক্ত নির্যাতনকারীদের আদালতের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার সুপারিশ করে মানবাধিকার কমিশন। এরপর আবিরনের পরিবারের পক্ষ থেকে পাওয়ার অব অ্যাটর্নি নিয়ে গত ১৬ ডিসেম্বর থেকে বিচার শুরু হয়। সৌদি আরবে বাংলাদেশি কোনো গৃহকর্মী হত্যায় বিচার বিরল ঘটনা।

ইত্তেফাক/ইউবি/এসএম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ