ইউনিটের ২ সদস্যের করোনা পজিটিভ, কোয়ারেন্টিনে অপূর্ব ও মেহজাবীন

নাটকের প্রিয় মুখ অপূর্ব ও মেহজাবীন চৌধুরী হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন। না, তাদের করোনা ধরা পড়েনি কিংবা উপসর্গও নেই। শুটিং ইউনিটের দুই সদস্যের কোভিড-১৯ ধরা পড়ায় তারা শুটিং ছেড়ে দিয়ে সোজা কোয়ারেন্টিনে চলে যান। তারা এখন নিজ নিজ বাসায় পরিবারের সবার থেকে আলাদা থাকছেন।

৮ জুলাই উত্তরার একটি হাউসে ‘প্রাণ প্রিয়’ নামে একটি নাটকের শুটিং সেটে এ ঘটনা ঘটে।

৭ জুলাই করোনা নেগেটিভ নিয়ে ২২ জনের দল শুটিং শুরু করে। জানা যায়, প্রথম দিন সন্ধ্যায় ‘প্রাণ প্রিয়’ নাটকের শুটিংয়ে দুজন সদস্য সামান্য অসুস্থবোধ করেন। ওই সময়ে ইউনিটের দায়িত্বে তাদের দ্বিতীয়বারের মতো করোনা পরীক্ষা করানো হয়।

নাটকটির আর মাত্র দুটি দৃশ্য শুটিং বাকি ছিল। এমন সময় শুটিংয়ের শেষ দিন অর্থাৎ ৮ জুলাই সন্ধ্যায় দুজনের ফল পজিটিভ আসে। তাই দৃশ্য দুটি বাদ রেখেই শুটিং বন্ধ ঘোষণা করেন নাটকটির প্রযোজক ও পরিচালক। ইউনিটের দায়িত্বে আক্রান্ত দুজনকে বাসায় পাঠিয়ে দেয়া হয়। তবে ইউনিটের কেউই ওই দুজনের নাম প্রকাশ করতে চাননি।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কোয়ারেন্টিন থেকে নাটকটির পরিচালক মিজানুর রহমান আরিয়ান বলেন, আমরা পুরো টিম করোনা পরীক্ষার ফল নেগেটিভ নিয়েই শুটিংয়ে নেমেছিলাম। এর জন্য বাড়তি খরচও করেছে প্রোডাকশন। শুটিংয়ের প্রথম দিন সন্ধ্যায় হালকা অসুস্থবোধ করেন ইউনিটের দুজন। প্রযোজক নিজ থেকে দুজনকে আবারও করোনা পরীক্ষা করান। দ্বিতীয় দিন শুটিংয়ে সারা দিন দুজনের কারোরই করোনার লক্ষণ দেখা যায়নি। সন্ধ্যায় ফল পজিটিভ আসে। সঙ্গে সঙ্গেই শুটিং বন্ধ করা হয়। ওই দুজনের নাম বলতে চাই না মানবিক কারণে।

বাসায় ফিরে পরিবারের সবার থেকে আলাদা থাকা শুরু করেছেন নাটকটির নায়ক-নায়িকা অপূর্ব ও মেহজাবীন। অপূর্ব জানান, কাল–পরশু মেহজাবীন ও তিনি আবার করোনা পরীক্ষা করাবেন। নেগেটিভ এলেও আরও কিছু দিন পর আরেকবার পরীক্ষা করাবেন। কোনো সমস্যা না থাকলে তার পর শুটিংয়ে নামবেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ