ফ্লাওয়ারের গলায় ইউনিসের ছুরি ধরার পেছনে আজহারউদ্দিন!

সম্প্রতি এক ক্রিকেট পডকাস্টে সাবেক পাক তারকা ইউনিস খানের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছিলেন জিম্বাবুয়ের সাবেক তারকা গ্রান্ট ফ্লাওয়ার।

২০১৬ সালে ব্রিসবেনে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষের টেস্ট চলাকালীন সকালের নাস্তায় গ্রান্ট ফ্লাওয়ারের গলায় ছুড়ি ধরেছিলেন ইউনিস খান।

সে সময় পাক দলের ব্যাটিং কোচ ছিলেন গ্রান্ট।

এমন ঘটনা প্রকাশের পর ক্রিকেটবিশ্বে হইচই পড়ে যায়। ইউনিস খান কীভাবে দলের কোচের সঙ্গে এমন আচরণ করতে পারলেন সে আলোচনায় হতভম্ব হয়ে পড়েন অনেকেই।

তবে ইউনিসের এই আচরণের জন্য ভারতের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনকে দুষলেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক রশিদ লতিফ।

তার দাবি, ভয়ঙ্কর সেই ঘটনায় ফ্লাওয়ার-ইউনিস বিরোধের মূলে ছিলেন মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন।

সেই ঘটনায় তো স্বশরীরে আজহারউদ্দিন উপস্থিত ছিলেন না তবে, তাকে কেন এর মধ্যে টানা হলো, কট বিহাইন্ড নামক এক ইউটিউব লাইভে এর একটা ব্যাখ্যা দিয়েছেন লতিফ।

তিনি বলেন, ২০১৬ সালে ওই সময় তেমন একটা ফর্মে ছিলেন না ইউনিস। তার ব্যাট কথা বলছিল না। তবে ওভালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দারুণ এক ডাবল সেঞ্চুরি করেন ইউনিস। আর সে ইনিংসটির আগে আজহারউদ্দিনের শরণাপন্ন হয়েছিলেন ইউনিস। ইংলিশ পেসারদের কীভাবে সামাল দিতে হবে আজহারউদ্দিন থেকে সে টিপস নিয়েছিলেন ইউনিস। আর সেঞ্চুরি পাওয়ার পর কোথাও গ্রান্ট ফ্লাওয়ারের নাম নেননি ইউনিস। বিষয়টি গ্রান্টকে নাড়া দিয়েছিল নিশ্চিত।

লতিফ বলেন, এটাই স্বাভাবিক যে, কোনো খেলোয়াড় যদি কোচকে এড়িয়ে বাইরের কারও সঙ্গে নিজের ব্যাটিং নিয়ে পরামর্শ করে তাহলে কোচের ভালো লাগবে না। আমার মনে হয় ফ্লাওয়ারের মনে আজহারউদ্দিনের ব্যাপারটি ছিল।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সাল থেকে পাকিস্তানের ব্যাটিং কোচ ছিলেন গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার। ২০১৯ সালে পাকিস্তান ছাড়েন গ্র্যান্ট। বর্তমানে একই পদে শ্রীলঙ্কা দলের দায়িত্বে আছেন তিনি।

তথ্যসূত্র: ক্রিকেট পাকিস্তান, টাইমস নাউ নিউজ

এ বিভাগের আরো সংবাদ