যেখানে পাকা আমের কেজি ১৫ টাকা!

রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় গাছপাকা লক্ষণভোগ (লকনা) আম প্রতি কেজি ১৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম থেকে কিনে নিয়ে যাচ্ছেন ছোট ছোট ফড়িয়া ব্যবসায়ীরা

সোমবার সকালে ফেরি ব্যবসায়ী উপজেলার চকবাউসা গ্রামের নজরুল ইসলাম ও রুস্তমপুর খেড়ুর মোড়ে এলাকার ইসলাম হোসেনকে আড়ানী পৌরসভার গোচর গ্রামে বাড়ি বাড়ি ঘুরে এই আম কিনতে দেখা গেছে।

সূত্রে জানা গেছে, বাগান মালিকরা পাকা আম গাছ থেকে নামিয়ে বাড়িতে রাখেন। এই আম প্রতিদিন সকালে ফেরি ব্যবসায়ীরা বাড়ি বাড়ি ঘুরে ক্রয় করছেন। এই আম তারা উপজেলার বিভিন্ন আড়তে ২-৩ টাকা লাভে বিক্রি করছেন।

উপজেলার গোচর গ্রামের আম বাগান মালিক মন্টু বলেন, আমার বাগানের প্রতিটি গাছে ব্যাপক আম আছে। বাগানের আম বিক্রি করা হয়নি। ফলে প্রতিদিন সকালে পাকা আম গাছ থেকে নামিয়ে বিক্রি করছি। এভাবে দুই সপ্তাহ ধরে আম বিক্রি করছি।

রুস্তমপুর খেড়ুর মোড়ের ইসলাম হোসেন বলেন, ভাই গরিব মানুষ। গ্রামে গ্রামে ঘুরে গাছপাকা আম ক্রয় করে স্থানীয় আড়তে ২-৩ টাকা কেজিতে লাভে বিক্রি করি। সারা দিনে ২০০-৩০০ কেজি আম ঘুরে ঘুরে ক্রয় করতে পারি।

এভাবে ১০-১২ বছর ধরে এই ব্যবসা করে আসছি। অন্য সময়ে সবজির ব্যবসা করি।

উপজেলার আড়ানী পৌরবাজারের মঞ্জুর রহমান নামে এক ব্যবসায়ী বলেন, গাছপাকা আম কিনে ঢাকায় চালান করি। এই আম ১৫ টাকা কেজি দরে ক্রেতাদের কাছ থেকে ক্রয় করছি।

এদিকে সোমবার স্থানীয় আড়তে কাচা আম লক্ষণভোগ ৭০০-৮০০ টাকা প্রতি মণ বিক্রি হচ্ছে। ল্যাংড়া ও খেরসাপাত ২৪০০-২৬০০ টাকায় প্রতিমণ কেনাবেচা হতে দেখা গেছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শফিউল্লা সুলতান বলেন, গাছে আম পাকলে বোটা নরম হয়। এই আম বাজারে বিক্রি হতে দেখা যাচ্ছে। উপজেলায় ৮ হাজার ৩৬৮ হেক্টর জমিতে আম চাষ হয়েছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ