আবারও ট্রাম্পকে গলা ধাক্কা দিল সুপ্রিমকোর্ট

মার্কিন সুপ্রিমকোর্টে আবারও গলা ধাক্কা খেলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তার কঠোর অভিবাসন নীতি বাস্তবায়নের চেষ্টা আটকে গল সর্বোচ্চ আদালতে।

বিদেশি শিশুদের জন্য ওবামা আমলে গৃহীত আইনি অনুমতি ‘ডিফার্ড অ্যাকশন ফর চাইল্ডহুড অ্যারাইব্যালস’র (ডিএসিএ) পক্ষেই রায় দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার এক রুল জারি করে ট্রাম্পের সিদ্ধান্তকে ‘বিধিবহির্ভূত’ ও ‘খামখেয়ালি’ বলে অভিহিত করেছেন বিচারকরা।

আদালতের এ রায়ে প্রাণ ফিরে পেয়েছেন অভিবাসীরা। তবে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন ট্রাম্প। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে খেদোক্তি করে বলেছেন, ‘সুপ্রিমকোর্ট আমাকে পছন্দ করে না।’

ওয়াশিংটন পোস্ট, নিউইয়র্ক টাইমস ও এনপিআর। যুক্তরাষ্ট্রে বেআইনিভাবে প্রবেশ করে বসবাস করছিলেন কয়েক হাজার তরুণ। এ সংখ্যাটা প্রায় ৭ লাখ।

তারা এখন বড় হয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রেই বসবাস করছেন। ২০১২ সালে বারাক ওবামা সরকার তাদের নাগরিকত্ব না দিলেও যুক্তরাষ্ট্রে থাকা ও কাজ করার আইনি অনুমতি দিয়েছিলেন।

যেটা ডিএসিএ (ডিফারড অ্যাকশন ফর চাইল্ডহুড অ্যারাইভাল) নামে পরিচিত। তবে ক্ষমতায় আসার ৬ মাসের মধ্যেই ট্রাম্প তৎকালীন অ্যাটর্নি জেনারেলকে এ কর্মসূচি বাতিল করার নির্দেশ দেন।

এরপর থেকেই এ সিদ্ধান্ত আদালতে গড়ায়। কিন্তু সেটাতে সফল হননি। বৃহস্পতিবার এক রুলিংয়ের মাধ্যমে এটা বাতিল করে দিয়েছে সুপ্রিমকোর্ট।

রুলে বলা হয়েছে, ডিএসিএ বাতিল করার পেছনে যথোপযুক্ত কারণ উপস্থাপন করতে পারেনি ট্রাম্প প্রশাসন। সুপ্রিমকোর্টের এ রুলের অর্থ হচ্ছে, যেসব অভিবাসী ডিএসিএতে নিবন্ধিত রয়েছেন তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানো যাবে না এবং দুই বছরের জন্য ওয়ার্ক পারমিট নবায়নের যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

যুক্তরাষ্ট্র সরকারের পরিসংখ্যান অনুসারে, ডিএসিএ-এর আওতাভুক্তদের মধ্যে বাংলাদেশের ৪৯০, ভারতের ২ হাজার ৬৪০ ও পাকিস্তানের ১ হাজার ৩৪০ জন রয়েছেন।

পুলিশ সংস্কার বিল পাস নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিলের : পুলিশ সংস্কারের লক্ষ্যে একটি বিল পাস করেছে নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিল।

এর মধ্যে বেশ কিছু প্রস্তাবনা গত কয়েক বছর ধরেই ঝুলে ছিল। কৃষ্ণাঙ্গ যুবক ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদে চলমান বিক্ষোভের ২৪তম দিনে সেসব প্রস্তাব আলোর মুখ দেখল।

এদিকে জর্জিয়ার আটলান্টায় চলমান বিক্ষোভের মধ্যে আত্মসমর্পণ করেছেন কৃষ্ণাঙ্গ যুবক রেশার্ড ব্রুকসের দুই খুনি অফিসার গ্যারেট রলফ ও ডেভিন ব্রসন্যান।

এ বিভাগের আরো সংবাদ