করোনার স্থায়িত্ব: স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের দুঃখপ্রকাশ

❛করোনা পরিস্থিতি এক, দুই বা তিন মাসে শেষ হচ্ছে না। এটি দুই থেকে তিন বছর বা তার চেয়েও বেশি দিন স্থায়ী হবে❜- স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজদের এমন বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়ে দুঃখপ্রকাশ করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের (ডিজি) বক্তব্যের স্ক্রিপটি তৈরি করতে করতে স্বাস্থ্য বুলেটিনের সময় হয়ে যাওয়ায় তিনি সেটি ভালো করে পরীক্ষা করার সুযোগ পাননি। স্ক্রিপ্ট পাঠ করে অনলাইনে বক্তব্য রাখেন। পরবর্তীতে তিনি বুঝতে পারেন যে, ওই বক্তব্যটিতে অস্পষ্টতা সৃষ্টি হতে পারে।

শুক্রবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক চিকিৎসক মো. জাহাঙ্গীর কবির স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তি বলছে, ‘গতকাল (বৃহস্পতিবার) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনা বিষয়ক নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদের একটি বক্তব্যকে ঘিরে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে মহাপরিচালক গভীরভাবে দুঃখিত।’

প্রেস বিজ্ঞপ্তি বলছে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের যে বক্তব্য নিয়ে বিভ্রান্তি দেখা দেয়, সে বিষয়ে প্রেস বিজ্ঞপ্তি আকারে গতকাল স্বাস্থ্য বুলেটিনে বলা হয়েছিল, ‘বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অভিজ্ঞতায় এবং বিশ্বের স্বাস্থ্য বিজ্ঞানী ও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী করোনা পরিস্থিতি সারা বিশ্বে এক, দুই বা তিন মাসেও শেষ হচ্ছে না। একটি সফল টিকা আবিষ্কার এবং পর্যাপ্ত জনগোষ্ঠীর মধ্যে সফল প্রয়োগ না হওয়া পর্যন্ত দেশগুলোতে করোনার অস্তিত্ব থাকবে। ফলে এটি এক বছরের বেশি, এমনকি দুই বা তিন বছর বা এর বেশি সময়ও স্থায়ী হতে পারে। যদিও আমরা মনে করি, সংক্রমণের মাত্রা হ্রাস পাবে।’

নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেছিলেন, ‘বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অভিজ্ঞতা, জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী পরিস্থিতি বিবেচনা করে করোনা পরিস্থিতি এক, দুই বা তিন মাসে শেষ হচ্ছে না। এটি দুই থেকে তিন বছর বা তার চেয়েও বেশি দিন স্থায়ী হবে। যদিও সংক্রমণের মাত্রা উচ্চহারে নাও থাকতে পারে।’

এ বিভাগের আরো সংবাদ