করোনা দুই-তিন বছরে দূর হচ্ছে না: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

বিশ্ব পরিস্থিতি এবং অভিজ্ঞতা বিচারে বিশ্বে এবং বাংলাদেশে আরও দুই-তিন বছর করোনাভাইরাস সংক্রমণ চলবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ।

বৃহস্পতিবার দেশের কভিড-১৯ সংক্রান্ত সবশেষ পরিস্থিতি নিয়ে অনলাইন বুলেটিনের আগে এই পূর্বাভাস দেন তিনি। জানান, চলমান পরিস্থিতি এবং অভিজ্ঞতা বিচারে বিশ্বে ও বাংলাদেশে আরও দুই-তিন বছর করোনাভাইরাস সংক্রমণ চলবে।

“বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অভিজ্ঞতায় এবং জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞগণের পরামর্শ বা অভিজ্ঞতা অনুযায়ী করোনা পরিস্থিতি আগামী এক, দুই বা তিন মাসেই শেষ হচ্ছে না। এটি দুই থেকে তিন বছর বা তার চেয়েও বেশি দিন স্থায়ী হবে। যদিও সংক্রমণের মাত্রা উচ্চ হারে নাও থাকতে পারে।”

উল্লেখ্য, ডা. আবুল কালাম নিজেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে ওঠায় কিছুদিন আগে দাপ্তরিক কাজে ফেরেন বলে জানান তিনি।

বাংলাদেশের পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, “বিশ্বব্যাপী অর্জিত অভিজ্ঞতা এবং বাংলাদেশের পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞগণ বলছেন, কিছু কাল পরেই বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণের উচ্চ হার কমে আসতে পারে। কিন্তু করোনার পরীক্ষার সংখ্যা বৃদ্ধি করলে অনেক লুক্কায়িত এবং মৃদু কেসও শনাক্ত হবে। সেক্ষেত্রে সংক্রমিত ব্যক্তির সংখ্যা দৃষ্টিগোচর নাও হতে পারে।”

করোনা সংকট মোকাবিলায় দুই হাজার চিকিৎসক ও পাঁচ হাজার নার্সসহ সরকার আরও যেসব পদক্ষেপ ও উদ্যোগ নিয়েছে সেসবও তুলে ধরেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম। সরকারি ও বেসরকারি খাত যাতে যৌথভাবে যাতে করোনা সংকট মোকাবিলা করতে পারে সে ব্যবস্থাও নেওয়া জানান তিনি।

এদিকে, বৃহস্পতিবার সকাল আটটা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে আরও ৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। সংক্রমণ ধরা পড়েছে ৩ হাজার ৮০৩ জনের শরীরে। বর্তমানে শনাক্তের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ২ হাজার ২৯২ জনে।

দেশের ৫৯টি ল্যাবে ১৬ হাজার ২৫৯টি নমুনা পরীক্ষা করে আক্রান্তের এই সংখ্যা পাওয়া গেছে। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৯৭৫ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ৪০ হাজার ১৬৪ জন।

এ বিভাগের আরো সংবাদ