সিলেটে করোনার উপসর্গ নিয়ে আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যু

সিলেট করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে এক আওয়ামী লীগ নেতা মারা গেছেন। আজ বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) বেলা আড়াইটার দিকে সিলেট মগানগর আওয়ামী লীগের ৩নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক মুরাদ আহমদ মুরন শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন উপসর্গ নিয়ে মারা যান।

মুরাদ আহমদ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যান বলে ফেসবুকে জানিয়েছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম নাদেল। পরে তিনি নিজের স্ট্যাটাস সংশোধন করে, মুরাদ আহমদ শ্বাসকষ্টে মারা যান বলে ফেসবুকে লেখেন।

যদিও মুরাদ আহমদের ভাতিজা ও ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা আবির হাসান রানা বলেন, তার শ্বাসকস্টজনিত সমস্যা ছিলো। কিন্তু করোনা আক্রান্ত ছিলেন না। তার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

আজ বাদ এশা মুরাদ আহমদের জানাযা সম্পন্ন হবে বলে জানান তিনি।

৩ং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ওয়ারিস মিয়া জানিয়েছেন, মুরাদ আহমদ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন কী না এ ব্যাপারে তিনি নিশ্চিত নন।

তিনি সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোরকে বলেন, করোনার উপসর্গ নিয়ে মুরাদ আহমদ নগরীর মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সেখানে অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলে আজ বাসায় নিয়ে আসা হচ্ছিলো। বাসায় নিয়ে আসার পথে তিনি মারা যান।

মুরাদ আহমদ মুরন নগরীর মুন্সিপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তিনি ঠিকাদারী পেশার সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

এরআগে গত সোমবার (১৫ জুন) ভোরে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য বদরউদ্দিন আহমদ কামরান।

শোক: মুরাদ আহমদ মুরনের মৃত্যুতে সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ ও সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। নগর আওয়ামী লীগের নেতৃদ্বয় মুরাদ আহমদ মুরনের ‘রাজনৈতিক ও সাংগঠনিক’ গুণ ও দক্ষতার কথা স্মরণ করে বিবৃতিতে বলেন, মুরনের মৃত্যুতে সংগঠন ক্ষতিগ্রস্ত হলো। সাংগঠনিক সক্রিয়তা ও রাজনৈতিক আদর্শ ধারন করে মুরন আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করে আসছিলেন। নেতৃদ্বয় মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

এ বিভাগের আরো সংবাদ