আর সংঘর্ষ নয়, আলোচনায় বসতে চায় বেইজিং

কয়েক দশক পরে দুই পারমাণবিক শক্তিধর দেশের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘাতের পর বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে বিবৃতি দেয়া হয়েছে। এতে ভারতের সঙ্গে আর কোনো সংঘর্ষে না জড়িয়ে কূটনৈতিক বা সামরিক পর্যায়ে আলোচনায় বসতে চায় চীন।

সংঘর্ষে ভারতের পক্ষ থেকে ২০ সেনা সদস্য নিহতের দাবি করা হলেও চীনের পক্ষ থেকে হতাহতের কথা নাকচ করা হয়।

বুধবার চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, বিবৃতি এ মুখপাত্র ভারতীয় সেনাবাহিনীকে অভিযুক্ত করেছেন। তিনি দাবি করেছেন, ভারতীয় সেনারা চীনের ভূখণ্ডে অবৈধভাবে প্রবেশ করে সেনাদের আক্রমণ করে।

ঝাও কোনো রকম হতাহতের খবরের বিস্তারিত না জানিয়ে বলেন, উভয় দেশের সেনাদের মধ্যে মারাত্মক শারিরীক লড়াইয়ের কারণে নিহত ও আহত হয়েছে।

সম্মুখ সেনাদের কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ, অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম, উত্তেজক অঙ্গভঙ্গি ও একতরফা কোনো কার্যক্রম না করতে ভারতের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

ঝাও বলেন, উভয় দেশ এই ইস্যুতে সমস্যা সমাধানে আলোচনা ও সমঝোতার জন্য কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। আমরা অবশ্যই আরও সংঘর্ষ দেখতে চাই না।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এ মুখপাত্র আরও বলেন, গালোয়ানের সার্বভৌমত্ব বরাবরই চীনের হাতে। ভারতীয় সেনাবাহিনী সীমান্ত সংক্রান্ত প্রোটোকল গুরুতরভাবে লঙ্ঘন করেছে এবং দ্বিপাক্ষিক কম্যান্ডার স্তরের বৈঠকে সর্বসম্মতভাবে গৃহীত সিদ্ধান্ত মানেনি।

এদিকে সীমান্তে পরিস্থিতি উন্নতির জন্য বুধবার ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুব্রামিনিয়াম জয়শঙ্করের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন চীনের জ্যেষ্ঠ কূটনীতিক ওয়াং ই।

এ বিভাগের আরো সংবাদ