‘দুর্নীতি রোধ না করলে বাজেটের সুফল পাওয়া যাবে না’

বাজেট বাস্তবায়নে সর্বস্তরে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করে বরাদ্দ হওয়া অর্থ হরিলুট, দুর্নীতি, অপচয় রোধ করতে না পারলে কাঙ্খিত সুফল পাওয়া যাবে না বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ।

দলটি মনে করছে, ঘাটতি বাজেট বাস্তবায়নই সরকারের চ্যালেঞ্জ। করোনাকালীন সঙ্কটেও সরকার ঘোষিত বাজেটে গণমানুষের স্বার্থ রক্ষিত হয়েছে খুবই কম।

বৃহস্পতিবার ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণার পর তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভুইয়া এসব কথা বলেন।

তারা বলেন, লুটপাটের ফলে ব্যাংকগুলোর অবস্থা এখন খুবই খারাপ। এর মধ্যে এর মধ্যে সরকারকে এত বিপুল পরিমান লোন দেয়া কঠিন হয়ে যেতে পারে।

করোনা কালিন জরুরি অবস্থা মোকাবেলা করার জন্য বিশেষ বরাদ্দ যেন সঠিক খাতে, সঠিকভাবে ব্যবহৃত হয় তার দিকে নজর রাখতে হবে। তা না হলে এই বরাদ্দ দুর্নীতিবাজ আর লুটেরাদের হাতে চলে যাবে।

ন্যাপ নেতারা বলেন, চাল, আটা, আলু, পেঁয়াজ, রসুনের স্থানীয় পর্যায়ে সরবরাহের ক্ষেত্রে উৎসে আয়কর কমানো, আমদানি করা চিনি ও রসুনের অগ্রিম আয়কর কমানো সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হলে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য হ্রাস পাবে। ফলে এর সুফল ভোগ করতে পারবে জনগন।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ এবং প্রতিরক্ষা খাতে বরাদ্দ প্রদানকে স্বাগত জানিয়েছে ন্যাপ।

এ বিভাগের আরো সংবাদ