সেদিন ইস্টার্ন প্লাজার সামনে দাঁড়িয়ে কেঁদেছিলাম: তামিম

বাংলাদেশ ক্রিকেটের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল। গত এক যুগ ধরেই জাতীয় দলের ওপেনার হিসেবে তার ওপরই ভরসা রাখছেন নির্বাচকরা। আর এখন তিনি বাংলাদেশ জাতীয় ওয়ানডে দলের অধিনায়ক।

ক্রীড়ামোদীরা ভাবতেই পারেন ক্রিকেট ক্যারিয়ারে শুধুই সাফল্য গাঁথা রয়েছে তামিমের। কিন্তু দেশসেরা ওপেনার হওয়ার পেছনে যে কিছু হতাশার ঘটনা রয়েছে তার ক্যারিয়ারে, সে কথা অনেকেরই অজানা।

শনিবার রাতে এমনই এক হতাশার গল্প ভক্ত-অনুরাগীদের জানালেন তামিম ইকবাল।

তিনি জানালেন, ক্যারিয়ার শুরুর আগে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে কোনো দলে সুযোগ না পাওয়ায় হতাশায় রাজধানীর ইস্টার্ন প্লাজার সামনে রাস্তায় দাঁড়িয়ে কেঁদেছিলেন।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ক্রিকেটভিত্তিক ওয়েবসাইট ক্রিকফ্রেঞ্জির সঙ্গে এক লাইভ সেশনে তামিম বলেন, তখন প্রিমিয়ার লিগে দল পেতে হলে সাইনিং করতে হতো। সাইনিং করতে না পারলে ওই ক্রিকেটার আর সে বছর খেলতে পারত না। সেবার প্রিমিয়ার লিগের আগে মাত্র একদিন সময় পেয়েছিলাম আমরা। কেননা চট্টগ্রামে আমাদের স্কটল্যান্ড থেকে আসা একটি দলের সঙ্গে ম্যাচ ছিল। ভাই নাফিস ইকবাল একটি দলে সাইনিং করে চলে যান চট্টগ্রামে।

তামিম বলেন, আমিও একই উদ্দেশে ঢাকায় রওনা হই। ৫-৬ জন একটি মাইক্রো নিয়ে সাইনিং করতে ঢাকায় আসি। কিন্তু ইস্টার্ন প্লাজার সামনে ওরা আমাকে মাইক্রো থেকে নামিয়ে দেন। আমি জিজ্ঞেস করি, আমাকে কেন নামিয়ে দিচ্ছেন? তখন ওরা বিসিবির কোনো এক কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলেন। তখন আমি ভাইকে (নাফিস ইকবাল) ফোন দিই। ভাইয়া বলেন, ওরা তোকে দলে নেবে না হয়তো। তাই এমনটি করেছে। আমি তখন রাস্তায় ওই জায়গায় দাঁড়িয়ে কান্না শুরু করে দিই। সেখানে দাঁড়িয়ে কাঁদতেই থাকি।

তামিম বলেন, কয়েক বছর আগে আমি ইস্টার্ন প্লাজার সামনে গিয়েছিলাম। তখন ওই জায়গাটায় আমি একটু দাঁড়াই। ওই দিনের কথা স্মৃতিতে চলে আসে।

ওই ঘটনার পর অবশ্য সেই সময়ের তারকা ক্রিকেটার খালেদ মাহমুদ সুজনের মাধ্যমে ওল্ড ডিওএইচএসে খেলার সুযোগ পান তামিম। আর সেখানেই ভালো পারফরম্যান্স করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সুযোগ পেয়ে যান।

এ বিভাগের আরো সংবাদ