বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের হিড়িক চলছে: ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, দেশব্যাপী বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দিয়ে গ্রেফতারের হিড়িক চলছে। গ্রেফতার করে হয়রানি করার মূল উদ্দেশ্য হলো বিশ্বব্যাপী এই করোনা ভাইরাস মহামারীর মধ্যেও কেউ যেন টু শব্দ করতে না পারে।
শনিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, সরকার নিজেদের অবৈধ সত্তা নিয়ে সবসময় আতঙ্কের মধ্যে আছে। তাই সমালোচনাকে যমের মতো ভয় পাচ্ছে। এক অজানা আতঙ্কের মধ্যে সরকার হাবুডুবু খাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার রাতে সাটুরিয়া থানা পুলিশ তিল্লি গ্রামের বিএনপি নেত্রী মাহমুদা পলি আক্তারকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার এবং গুজোব ছড়ানোর অভিযোগে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার চন্দনাইশ উপজেলার ছাত্রদল নেতা সাজ্জাদ হোসেনকে গ্রেফতারের ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, পলির মতো একজন নারী নেত্রীও গ্রেফতারের হাত থেকে রেহাই পায়নি। এই করোনাকালেও পলি ও সাজ্জাদের মতো বিএনপির নেতাকর্মীরা সরকারি নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। সরকারের এহেন কর্মকাণ্ড অমানবিক ও কাপুরুষোচিত। অবিলম্বে মাহমুদা পলি আক্তার ও সাজ্জাদ হোসেনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান বিএনপি মহাসচিব।

সরকারের চারদিকে সীমাহীন ব্যর্থতা উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, করোনা ভাইরাসের প্রকোপে বাঁধভাঙ্গা পানির স্রোতের মতো দেশের জনগণ আক্রান্ত হচ্ছে, মৃত্যুর সারি দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে। কোভিড-১৯ আক্রান্ত মানুষের এদেশে কোন চিকিৎসা নেই। হাসপাতালে করোনা রোগীদের ভর্তি যেন এক দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে। হাসপাতালে আইসিইউ ও অক্সিজেনের অভাবে আক্রান্ত রোগীরা অসহায়ভাবে কাতরাচ্ছে। রোগীর তুলনায় শয্যা একেবারেই ন্যূনতম। আক্রান্ত মানুষ এক হাসপাতাল থেকে আরেক হাসপাতালে ছুটতে ছুটতে রাস্তার মধ্যেই মারা যাচ্ছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, চারদিকে ক্ষুধার জ্বালায় কর্মহীন মানুষ হাহাকার করছে। এক দুর্ভিক্ষের ঘণছায়া সারা দেশে বিস্তার লাভ করছে। এই কঠিন দুঃসময়ে সরকার সম্মিলিতভাবে মোকাবেলা না করে বরং মিথ্যা আহমিকায় জনগণের কাছে সত্যের অপলাপ করছে। আর বিএনপিসহ বিরোধী দল ও মত যাতে মাথাচাড়া দিতে না পারে সেজন্য আগের মতোই রাষ্ট্রযন্ত্রকে নির্দয়-নিষ্ঠুরভাবে কাজে লাগানো হচ্ছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ