যুক্তরাষ্ট্রের পরেই ব্রাজিল, একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড

ব্রাজিলে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড গড়েছে দেশটি।

প্রতিদিন আক্রান্তের সংখ্যা এতোটাই বাড়ছে যে, মাত্র কয়েকদিনে ইউরোপের সব দেশ আর রাশিয়াকে ডিঙ্গিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে চলে এসেছে ব্রাজিল।

আক্রান্তের দিক দিয়ে করোনায় সবেচেয়ে বেশি বিপর্যস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্রের পরই এখন ব্রাজিলের অবস্থান।

আক্রান্তের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর মিছিলও। টানা ৪ দিন এক হাজারের বেশি করোনা রোগীর মৃত্যু ঘটেছে দেশটিতে।

ইতোমধ্যেই স্পেনকে ছাড়িয়ে বিশ্বে করোনায় সর্বাধিক মৃতের তালিকায় পঞ্চম স্থানে উঠে এসেছে লাতিন আমেরিকার এই দেশ। পরিস্থিতি একই থাকলে শিগগিরই ফ্রান্সকে ছাড়িয়ে যাবে তারা।

শনিবার ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে আরও ২৬ হাজার ৯২৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। একইদিনে মারা গেছে আরও ১ হাজার ১২৪ জন।

আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটার বলছে, দেশটিতে এ পর্যন্ত মোট করোনা রোগীর সংখ্যা ৪ লাখ ৬৮ হাজার ৩৩৮ জনে দাঁড়িয়েছ। মোট মৃত্যু সংখ্যা ২৭ হাজার ৯৪৪ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৯৩ হাজার ১৮১ জন। হাসপাতালে ও হোম কোয়ারেন্টিনে চিকিৎসাধীন ২ লাখ ৪৭ হাজার ২১৩ জন। এদের মধ্যে ৮ হাজার ৩১৮ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এমন ভয়ঙ্কর পরিসংখ্যানও সচেতন নন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো। শুরু থেকেই করোনাকে ধারণ ফ্লুর সঙ্গে তুলনা করছেন তিনি।

তার সেই ধারনার বাস্তব প্রমাণও মিলেছে গত ২৫ মে। এদিন চরম করোনা পরিস্থিতিতেও সমর্থকদের নিয়ে মিছিল বের করেছন তিনি।

প্রথমে মুখে একটি সাদা মাস্ক পরে বের হলেও সমাবেশে উপস্থিত হয়ে সেটি খুলে ফেলতে দেখা যায় তাকে।

গত ১ মাসে দুইজন স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে বরখাস্ত করেছেন এই লকডাউন বিরোধী প্রেসিডেন্ট।

এসব কর্মকাণ্ডের দরুণ বিশ্বে বেশ সমালোচিত হচ্ছেন তিনি।

তথ্যসূত্র: ফ্রান্স২৪, জিনহুয়া নেট, টাইমস অব ইন্ডিয়া

এ বিভাগের আরো সংবাদ