কাস্টমস-ভ্যাটের ডেপুটি কমিশনারসহ ২২ জন করোনায় আক্রান্ত

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) কাস্টমস-ভ্যাট বিভাগে কর্মরত এক ডেপুটি কমিশনারসহ ২২ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালন করতে গিয়েই তারা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আর এ আক্রান্ত ২২ জনের মধ্যে ১৩ জনই চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসে কর্মরত।

সর্বশেষ বিসিএস (কাস্টমস অ্যান্ড এক্সাইজ) ক্যাডারের এক কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত হন। তিনি কর্মকর্তা রংপুর কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটে ডেপুটি কমিশনার হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। বৃহস্পতিবার এ কর্মকর্তার করোনা শনাক্ত হয়।

বর্তমানে তিনি ঢাকার বাসায় আইসোলেশনে রয়েছেন।রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে তিনি আক্রান্ত হয়েছেন।

রংপুর ভ্যাট কমিশনার শওকত আলী সাদী যুগান্তরকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঈদের আগে আমার এখানে কর্মরত একজন ডেপুটি কমিশনার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বিশেষ প্রয়োজনে ঢাকায় ছুটিতে যাওয়ার পর অসুস্থতা বোধ করলে ২৭ তারিখে করোনা পরীক্ষা করান। পরে দুইদিনের মাথায় করোনা পজেটিভ ফলাফল আসে। আমি স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাকে আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ দিয়েছি। তিনি বলেন, রংপুরে এই প্রথম কোনো ভ্যাট কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

কাস্টমস ও ভ্যাট বিভাগ সূত্র জানায়, রংপুর ভ্যাটের এ কর্মকর্তাসহ কাস্টমস ও ভ্যাট বিভাগে আক্রান্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীরর সংখ্যা দাঁড়াল ২২ জনে। এর মধ্যে কাস্টমস ও ভ্যাট ক্যাডারের একজন।

চট্টগ্রাম কাসটমস হাউসের কমিশনার মো. মোহাম্মদ ফখরুল আলম যুগান্তরকে জানান, চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসে সর্বশেষ ৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়। করোনার উপসর্গ দেখা দেয়ার পর থেকে এই ৫ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী ছুটিতে রয়েছেন। তারা সবাই বাসা থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। নতুন এই ৫ জনসহ চট্টগ্রাম কাস্টমসে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৩ জনে।

তিনি বলেন, করোনায় আক্রান্ত এই ১৩ জনের মধ্যে ছয়জন রাজস্ব কর্মকর্তা। ছয়জন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা ও একজন কম্পিউটার অপারেটর। একজন রাজস্ব কর্মকর্তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। তিনি আনোয়ার খান মর্ডান হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।এছাড়া একজন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

বিসিএস (কাস্টমস অ্যান্ড ভ্যাট) অ্যাসোসিয়েশন সূত্র জানায়, অন্যান্য আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছে-আইসিডি কমলাপুর কাস্টম হাউসের একজন রাজস্ব কর্মকর্তা ও একজন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা। ভ্যাট পশ্চিম কমিশনারেটের একজন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা। ভ্যাট উত্তর কমিশনারেটের একজন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা। ঢাকা কাস্টম হাউসের তিনজন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা। চট্টগ্রামের ভ্যাট কমিশনারেটের একজন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা।

ঢাকা কাস্টম হাউসের কমিশনার মো. মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, আমরা ১৫ জনের করোনা পরীক্ষা করিয়েছি। এর মধ্যে তিনজনের পরীক্ষায় পজেটিভি এসেছে। তারা চিকিৎসাধীন রয়েছে।

বিসিএস (কাস্টমস অ্যান্ড ভ্যাট) অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব এবং মূসক, নিরীক্ষা গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের মহাপরিচালক সৈয়দ মুসফিকুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, আক্রান্তদের সবাই আইসোলেশনে রয়েছেন। আমরা সংগঠনের পক্ষ থেকে চেষ্টা করছি প্রাতিষ্ঠানিকভাবে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আইসোলেশনে রাখার। রোববার এ বিষয়ে এনবিআরের চেয়ারম্যানের সঙ্গে সংগঠনের পক্ষ থেকে বৈঠকে বসব।তিনি আরও বলেন, এনবিআরের সব কর্মকমর্তা-কর্মচারীদের জন্য কোনো একটি নির্দিষ্ট হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তির ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করছি। যাতে করোনা মহামারীর চিকিৎসা সবাই নিতে পারে।

এনবিআর সূত্র জানায়, লকডাউনের মধ্যে রিটার্ন দাখিলে ১২-১৫ এপ্রিল ভ্যাট সার্কেল খোলা ছিল। দেশের ২৫২টি ভ্যাট সার্কেলে জমা নেওয়া হয় রিটার্ন। পরে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আদেশ অনুযায়ী সীমিত পরিসরে ভ্যাট অফিস খোলা ছিল। ঈদের আগেও রাজস্ব আহরণ ও রিটার্ন জমা এবং ভ্যাট সেবা প্রদানে সীমিত পরিসরে খোলা ছিল ভ্যাট অফিস। কর্মকর্তারা অনেকটা সুরক্ষা সামগ্রী ছাড়াই সেবা দিয়েছেন। ৩১ মে থেকে আগের মতো স্বাভাবিকভাবে খোলা থাকবে ভ্যাট অফিস।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরো সংবাদ